শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
ধর্মপাশায় একটি পাগলা কুকুরের কামড়ে ১৫জন আহত  » «   সিলেটে কর্মশালা: দায়িত্বশীল সাংবাদিকতা অপরিহার্য  » «   ছাত্র সমাজের মধ্যে প্রকৃত আদর্শ বিলিয়ে দিতে হবে- মাহবুবুর রহমান ফরহাদ  » «   আবারো ত্রিভুবনে ১৩৯ যাত্রী নিয়ে রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ল মালয়েশিয়ার বিমান  » «   ১২ মাস ভিজিএফ’র চাল ও নগদ অর্থ বিতরণ করে প্রমাণ হয়েছে এ সরকার কৃষি বান্ধব  » «   লন্ডন সিলেট ফ্রেন্ডশীপ অর্গানাইজেশনের মুকিত কে সংবর্ধনা  » «   মৌলভীবাজারে বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করলো ছেলে  » «   নগরী থেকে রবিউল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি নিখোঁজ  » «   জ্ঞানের রাজ্যে ভ্রমণের জন্য তো কোনো পাসর্পোট ভিসা লাগেনা–প্রণবকান্তি দেব  » «   কৃষি জমি রক্ষার দাবীতে ফতেহপুরবাসীর প্রতিবাদ সভা  » «  

সিলেটে রাজস্ব হালখাতায় সোয়া ৮ কোটি টাকা কর আদায়



ডেস্ক নিউজ:: সিলেটে রাজস্ব হালখাতা অনুষ্ঠানে ৮ কোটি ২৬ লাখ ৪৮ হাজার ৭৩৩ টাকা কর আদায় হয়েছে। রোববার দনব্যাপী অনুষ্ঠিত হালখাতা অনুষ্ঠানে ৪টি প্রতিষ্ঠানসহ ৭৪২ জন এই বকেয়া কর প্রদান করেন। সিলেটের উপ কর কমিশনার (সদর) কাজল সিংহ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

‘জ্ঞানের আলোয় উদ্ভুদ্ধ করে রাজস্ব সংস্কৃতির বিকাশ’স্লোগানে সারা দেশের ন্যায় রাজস্ব হাল খাতা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে কর অঞ্চল সিলেট। এদিন সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধান অতিথি হিসেবে রাজস্ব হালখাতার উদ্বোধন করেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (বোর্ড প্রশাসন) এস এম আশফাক হুসেন। সিলেট কর কমিশনার কার্যালয়ে বনাঢ্য আয়োজনে পিঠাপুলি দিয়ে বরণ করা হয় করদাতাদের। মুগ্ধতা ছড়াতে আয়োজনে রাখা হয় আবহমান বাংলার সংস্কৃতি ও বাউল গান।

হালখাতা অনুষ্ঠানের আয়োজক সিলেট কর অঞ্চলের কর কমিশনার আবু হান্নান দেলওয়ার হোসেন বলেন, উন্নয়নের অগ্রযাত্রার মূল উদ্দেশ্য আভ্যন্তরীণ রাজস্ব আদায়। রাজস্ব হালখাতা ও বৈশাখী উৎসবের মূল উদ্দেশ্য মানুষ যাতে উৎসব মুখর পরিবেশে রাজস্ব দিতে পারে। এই আয়োজনের মধ্যে দিয়ে রাজস্ব আদায়ে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছেন তারা।

তিনি বলেন, জ্ঞান ভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণে হালখাতা অনুষ্ঠানে করদাতাদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে বই। যাতে বই পড়ে মানুষ কর দিতে উৎসাহিত হন। এবার বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী, কারাগারের রোজনামচা, মার্কিন মুলুকে মনোভ্রমন, দেশ-বিদেশের ভ্রমণ কথা, আজব ও জবর-আজব অর্থনীতি, এই পাঁচটি বই উপহার উপহার হিসেবে করদাতাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। গত বছর হালখাতায় রাজস্ব আদায় সাড়ে ৫ কোটির মতো হলেও এবার ৮ কোটি ছাড়িয়ে গেছে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর মো. মনির উদ্দিন, ড. কবীর চৌধুরী, বাফুফের সদস্য ও সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাহি উদ্দিন সেলিম, মুক্তিযোদ্ধা সাইফুল আলম, সিলেট চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রিজ এর সাবেক পরিচালক হিজকিল গুলজার,অতিরিক্ত কর কমিশনার তোহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত কর কমিশনার মোহাম্মদ তৌহিদ মুনির, উপ কর কমিশনার কাজল সিংহ, আনোয়ার সাদাত,গোবিন্দ চন্দ্র দাস, সহকারি কর কমিশনার মোহাম্মদ আবু সাঈদ, সাদ উল্লাহ, ফয়াজ উদ্দিন, বিধান চন্দ্র দেবনাথ, সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকরামুল কবীর, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহ দিদার আলম নবেল, সাংবাদিক আফতাব চৌধুরী, আয়কর আইনজীবী সমিতির সভাপতি মৃত্যুঞ্জয় ধর ভোলা, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মোহাম্মদ আলী খোকন, জালালাবাদ গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেমস লিমিটেড ও সিলেট পেট্টো বাংলার লিমিটেডের প্রতিনিধিবৃন্দ।

হালখাতা অনুষ্ঠানে উল্লেখযোগ্য প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সিলেট গ্যাস ফিল্ড ৬ কোটি ৯৩ লাখ টাকা ও জালালাবাদ দেড় কোটি টাকা পে অর্ডারের মাধ্যমে আয়কর প্রদান করে।