শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
সিলেটে ফিরে নেতাকর্মীদের ভালবাসায় সিক্ত কামরান  » «   বন্যায় সবজি খেত বিনষ্ট, কমলগঞ্জে কাঁচা বাজারে আগুন  » «   পাঁচ জনকে পেছনে ফেলে কামরানের মনোনয়ন জয়: নগরীতে আনন্দ মিছিল  » «   সিলেটে দলীয় সমর্থন আদায়ে আ’লীগ-বিএনপি নেতাদের দ্বারে দ্বারে কাউন্সিলর প্রার্থীরা  » «   চুনারুঘাটে রাত পোহালেই আমু চা বাগানের শ্রমিকদের নির্বাচন  » «   সিলেটে পুলিশের সাথে ছাত্রদলের সংঘর্ষ: আটক ১৫  » «   ভারতীয় কাশ্মীরে বন্দুকযুদ্ধ, পুলিশসহ নিহত ৬  » «   আ’লীগের নিজস্ব ভবন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   পাঁচ জেলায় সড়কে প্রাণ গেল ৩২জনের  » «   শুভ জন্মদিন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ: এড শাকী শাহ ফরিদী  » «  

বিউটি ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় বাবুল ৫ দিনের রিমান্ডে



ডেস্ক নিউজ:: হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে আলোচিত কিশোরী বিউটিকে ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনার মামলায় গ্রেফতার প্রধান আসামি বাবুল মিয়াকে ৫ দিনের রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ।

রোববার বিকালে হবিগঞ্জের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আছমা বেগমের আদালত এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, রোববার বিকালে শায়েস্তাগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মানিকুল ইসলাম আসামি বাবুলকে আদালতে হাজির করে তার ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন।শুনানি শেষে বিচারক ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে দুপুরে হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরা নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, বাবুলকে গ্রেফতারের পর র‌্যাব তাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। যেহেতু আসামি ধরা পড়েছে তাকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। তথ্য প্রমাণাদি উদ্ধারের চেষ্টা করা হবে।

শুক্রবার দিবাগত রাতে সিলেটের বিয়ানিবাজার এলাকার রামদা গ্রামে ফুফুর বাড়ি থেকে বাবুলকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৯। শনিবার তাকে শায়েস্তাগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ১৬ মার্চ রাতে নানার বাড়ি লাখাই উপজেলার গুণিপুর গ্রাম থেকে নিখোঁজ হয় শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার ব্রাহ্মণডোরা গ্রামের ছায়েদ আলীর মেয়ে বিউটি আক্তার। পরদিন নানার বাড়ি থেকে প্রায় ৪ কিলোমিটার দূরে হাওরে তার লাশ পাওয়া যায়।

তার শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন ছিল। এ ঘটনায় বিউটির বাবা ছায়েদ আলী বাদী হয়ে একই গ্রামের বাবুল মিয়া ও তার মা ইউপি সদস্য কলম চান বিবিকে আসামি করে শায়েস্তাগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। শুরুতেই গ্রেফতার করা হয় বাবুলের মা ইউপি সদস্য কলম চান বিবি ও বন্ধু ইসমাইল মিয়াকে।