সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বেদাতীরা ইসলামের শত্রু, মানবতার শত্রু –আল্লামা আলিমুদ্দীন



জাফলংয়ে ‘ঈমান আক্বিদা সংরক্ষণ কমিটি’র প্রতিবাদ সমাবেশ
ডেস্ক নিউজ:: বৃহত্তর সিলেটের প্রখ্যাত আলেম শায়খুল হাদিস আল্লামা আলিমুদ্দীন দুর্লভপুরী বলেছেন, সিলেটের পবিত্র মাটিতে আলেম সমাজের অহঙ্কার মাওলানা মুজ্জাম্মিলকে হত্যা করে ভন্ড খুনিরা জৈন্তার ইতিহাসকে কলুষিত করেছে। তাই এখন থেকে এদেরকে প্রতিরোধ গড়ে তোলে সকল বেদ’তী কর্মকান্ডকে গুড়িয়ে দিতে হবে।

বেদাতীরা ইসলাম শত্রু, মানবতার সত্রু উল্লেখ করে দুর্লভপুরী বলেন, এখন থেকে প্রশাসনকে উদ্যোগী হয়ে জৈন্তা থেকে ভন্ড বেদা’তীদের তাড়িয়ে দিতে হবে। তিনি বলেন, ভন্ড বেদা’তীদের মাদরাসা সমূহকে কওমি মাদরাসায় রূপান্তরিত করতে সংশ্লিষ্টদের এগিয়ে আসার আহবান জানান দুর্লভপুরী।

সোমবার দুপুরে গোয়াইনঘাট উপজেলার আমির মিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ‘ঈমান আক্বিদা সংরক্ষণ কমিটি’ সিলেটের আহবানে হরিপুর বাজার মাদরাসার আলেম শহিদ মুজ্জাম্মিল হত্যা ও আলেম উলামাসহ তৌহিদি জনতার উপর থেকে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে আয়োজিত সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

মাওলানা বিলাল উদ্দীন ও মাওলানা আব্দুল ওয়াদুদের যৌথ পরিচালনায় মহাসমাবেশে দুর্লভপুরী বলেন, এখন থেকে বৃহত্তর জৈন্তায় কোন ভন্ড বেদা’তী আলেম মসজিদ, মাদরাসায় ইমামতি করতে পারবে না। তিনি আগামী ৫এপ্রিল সিলেট শহরে মহাসমাবেশ সফলের জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।

সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংগঠনের মহাসচিব,হরিপুর বাজার মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা শায়খ হিলাল আহমদ বলেন, শহিদ মুজ্জাম্মিল হত্যার দীর্ঘ ২১দিন অতিবাহিত হয়ে গেলও পুলিশ এখনো কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

তিনি বলেন, অবিলম্বে খুনিদের গ্রেফতার করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করুন, অন্যথায় যে কোন পরিস্থিতির দায়ভার প্রশাসনকেই বহন করতে হবে। তিনি তৌহিদি জনতার উপর দায়ের করা বেদা’তীদের মিথ্যে মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহার করার দাবি জানান।

প্রতিবাদ সমাবেশে হযরত শাহজালাল (রহ:) দরগাহ মাদরাসার শায়খুল হাদিস আল্লামা মুহিবুল হক গাছবাড়ী বলেন, আমরা বৃহত্তর জৈন্তার মানুষ অত্যান্ত শান্তিপ্রিয়। কিন্তু বহিরাগত কিছু ভন্ড বেদা’তী সন্ত্রাসীরা এসে এই জৈন্তাকে অশান্তির দিকে ঠেলে দিচ্ছে। যা কোনো ভাবেই মেনে নেওয়া যায়না। তিনি অবিলম্বে ঘাতকদের খোঁজে বের করে দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্থির দাবি করেন।

সাবেক সংসদ সদস্য এডভোকেট মাওলানা শাহিনুর পাশা চৌধুরী বলেন, কোন অপশক্তি আমাদের আন্দোলনকে বন্ধ করতে পারবেনা,বর্তমান আন্দোলনকে বন্ধ করার একটি মাত্র পথ হচ্ছে, খুনিদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি।

বন্দরবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মুশতাক আহমদ খান বলেন,যত বাধা বিপত্তি হামলা মামলা হউক আমরা আমাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবো,খুনিদের শাস্তি না হওয়া পর্যন্ত আমরা মাঠে আছি,মাঠে থাকবো।

সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, শায়খুল হাদিস আল্লামা আব্দুল কাদির বাগেরখালী, শায়খুল হাদিস আল্লামা আহমদ আলী, মাওলানা শফিকুল হক সুরইঘাটি, মাওলানা আতাউর রহমান কোম্পানীগঞ্জী, মাওলানা রেজাউল করিম জালালী, মাওলানা ফয়জুল হাসান খাদিমানী, মাওলানা মাহমুদুল হাসান রায়গড়ী, মাওলানা শামসুদ্দীন দুর্লভপুরী, এ ভোকেট মোহাম্মদ আলী, জেলা পরিষদ সদস্য মুহিবুল হক, জৈন্তাপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বশির উদ্দীন এম এ, গোয়াইনঘাট উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহ আলম স্বপন, ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুর রহমান লেবু,সাবেক চেয়ারম্যান মৌলভী রহমতউল্লাহ,সাবেক চেয়ারম্যান কামাল উদ্দীন, গোয়াইনঘাট উপজেলা সার্কেল এ এস পি মতিউর রহমান, চতুল ইউপি চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হোসাইন, মুফতী জিল্লুর রহমান, মাওলানা জয়নাল আবেদীন, বিশিষ্ট রাজনিতীবিদ জাকারিয়া মাহমুদ, মাওলানা ওলিউর রহমান, মাওলানা গোলাম আম্বিয়া কয়েছ,মাওলানা কবির আহমদ,হাফিজ মাওলানা মাসউদ আজহার, মাওলানা খালেদ আহমদ,হ াফিজ আব্দুল করিম দিলদার প্রমূখ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন।