সোমবার, ২৮ মে ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
উন্নতির জন্য সংযমের বিকল্প নেই: ইমরান আহমদ এমপি  » «   সিলেট কুমারগাওঁ এলাকায় সন্ত্রাসী হামলায় দুই যুবলীগ নেতা আহত  » «   রোজার মাসে বলছি, কাউকে ছাড়ব না: মান্না  » «   কোম্পানীগঞ্জ ইমরান আহমদ কারিগরি কলেজের অনুমোদন  » «   সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদের কাপড় দিলো রাইজ স্কুল  » «   উপশহরে সুরক্ষিত ফ্লাটে দুর্ধর্ষ চুরি : অর্ধ কোটি টাকা মালামাল লুট  » «   সিমান্তিকের কিশোরী সমাবেশ অনুষ্ঠিত  » «   ফের একতরফা নির্বাচন করতে প্রধানমন্ত্রী ভারতের শরণাপন্ন  » «   খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে ব্যারিস্টার সালামে ইফতার মাহফিলে মানুষের ঢল  » «   কমলগঞ্জে গাঁজা বিক্রয়কালে পিতা-পুত্র আটক  » «  

১৯তম ব্যাচের ১৩ শিক্ষার্থীরা ছিলেন এই সেলফিতে



স্টাফ রিপোর্ট:: নেপালে বিধ্বস্ত হওয়া ইউএস বাংলার বিমানে সিলেটের জালালাবাদ রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১৩ শিক্ষার্থী ছিলেন বলে জানা গেছে। তারা সকলেই নেপালী বংশোদ্ভূত।

সিলেটের জালালাবাদ রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১৯তম ব্যাচের এই শিক্ষার্থীরা ফাইনাল প্রুফ দিয়ে ছুটিতে নিজেদের দেশে বেড়াতে গিয়েছিলেন। পরিক্ষা শেষে সবার সাথে এক সেলফিতে ছিলেন তারা।

এই বিমানে যাত্রী ছিলেন রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী- সঞ্জয় পৌডেল, সঞ্জয়া মহারজন, নেগা মহারজন, অঞ্জলি শ্রেষ্ঠ, পূর্নিমা লোহানি, শ্রেতা থাপা, মিলি মহারজন, শর্মা শ্রেষ্ঠ, আলজিরা বারাল, চুরু বারাল, শামিরা বেনজারখার, আশ্রা শখিয়া ও প্রিঞ্চি ধনি।

জালালাবাদ রাগীব রাবেয়া রাবেয়া মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. আবেদ হোসেন জানান, বিধ্বস্ত হওয়া বিমানে আমাদের কিছু শিক্ষার্থী ছিলো বলে শুনেছি। তবে কতজন ছিলো তা এখনো নিশ্চিত হতে পারিনি।

তিনি বলেন, চুড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা শেষে ফলাফল প্রকাশের জন্য দুই মাসের মতো সময় লাগে। এই সময়ে সকলেই নিজেদের বাড়িতে চলে যায়। নেপালের শিক্ষার্থীরাও তাদের দেশে যাচ্ছিলো।

মেডিকেল কলেজের একটি সূত্রে জানা গেছে, এদের মধ্যে একজন নিহত ও ছয়জন আহত হওয়ার খবর পেয়েছেন তারা। বাকীদের এখনো কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।