রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
চারখাই ত্রিমুখে ‘শহীদ নাহিদ চত্বর’র উদ্বোধন করলেন শিক্ষামন্ত্রী  » «   কমলগঞ্জের ধলই চা বাগানে মস্তকবিহিন নারীর লাশ উদ্ধার  » «   ওসমানীনগরে বাস চাপায় নিহত ২ : আহত ২  » «   হাউজিং এস্টেট এসোসিয়েশনের ৫০ বছর পূতি উপলক্ষে প্রথম সভা অনুষ্ঠিত  » «   জগন্নাথপুর পৌর পয়েন্টে ট্রাফিক চত্বর জরুরী  » «   সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন ও মানববন্ধন পালিত  » «   সিলেটের চেঙ্গেরখাল নদীসহ বিভিন্ন নদ-নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ করার দাবিতে প্রতিবাদ বন্ধন  » «   ইরানের সামরিক কুচকাওয়াজে হামলায় ৮ সেনা নিহত  » «   সন্ত্রাসী হামলায় আহত এসপিআই শিক্ষার্থী নাঈম  » «   ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ কোতোয়ালী থানার প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত  » «  

প্রবাসী শ্রমিকদের উপর আরোপ করা লেভি বাতিলের আবেদন ব্যবসায়ী সংগঠন’র



সেলিম আহমেদ সৌদি আরব প্রতিনিধিঃ চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে সৌদি আরবে কর্মরত প্রত্যেক প্রবাসী কর্মীর জন্য কোম্পানীগুলোর কাছ থেকে ৪০০ সৌদি রিয়াল করে আদায় করতে শুরু করেছে সৌদি সরকার। যেসব কোম্পানীতে কর্মরত প্রবাসী শ্রমিকের সংখ্যা সৌদি নাগরিকের চেয়ে বেশি, সেসব কোম্পানীর কাছ থেকে এই ফি আদায় করা হয় ।
অন্যদিকে, যেসব কোম্পানীতে সৌদি শ্রমিক আর প্রবাসী শ্রমিকের সংখ্যা সমান সেসব কোম্পানীতে প্রত্যেক প্রবাসী শ্রমিকের জন্য ৩০০ সৌদি রিয়াল করে আদায় করে সৌদি সরকার । সম্প্রতি জেদ্দা চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি, দেশটির শ্রম ও সামাজিক মন্ত্রণালয়ের কাছে এই ফি বাতিলের আবেদন জানিয়েছে । তারা বলেছে, যেসব কোম্পানীতে কর্মরত সৌদি এবং প্রবাসী শ্রমিকের সংখ্যা সমান সেসব কোম্পানীকে এই লেভি থেকে রেহাই দেয়া উচিত। জেদ্দা চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি এ রকম আরো ৭টি প্রস্তাব পাঠিয়েছে শ্রম মন্ত্রণালয়ের কাছে । বলা হয়েছে, যেসব প্রবাসী শ্রমিককে এক্সটি ভিসা দেয়া হয়েছে তাদের ক্ষেত্রে এই লেভি আদায় করা উচিত নয় । সৌদি গেজেটে প্রকাশিত এক খবরে এসব তথ্য জানানো হয়েছে ।  প্রবাসী শ্রমিকদের ক্ষেত্রে এই ফি বা লেভি ২০১৯ সালে প্রবাসী শ্রমিক প্রতি বেড়ে দাঁড়াবে ৬০০ সৌদি রিয়ালে এবং ২০২০ সাল থেকে হবে ৮০০ সৌদি রিয়াল। আর যেসব কোম্পানীতে সৌদি আর প্রবাসী শ্রমিকের সংখ্যা সমান, সেসব কোম্পানীতে ২০১৯ সালে প্রবাসী শ্রমিক প্রতি লেভির পরিমাণ হবে ৫০০ সৌদি রিয়াল এবং ২০২০ সালে ৭০০ সৌদি রিয়াল । জেদ্দা চেম্বার এক হিসাব দিয়ে বলছে, এসব লেভির কারণে ১৫.৬% শতাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধের পথে এবং ১১% ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আর্থিক ঝুঁকির মুখে পড়েছে। শুধু জেদ্দা চেম্বার নয়, সৌদি ব্যবসায়ীদের আরো বেশ কয়েকটি সংগঠন শ্রম মন্ত্রণালয়ের কাছে এসব ফি আদায় বন্ধের আবেদন করেছে ।