শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
ছাত্র সমাজের মধ্যে প্রকৃত আদর্শ বিলিয়ে দিতে হবে- মাহবুবুর রহমান ফরহাদ  » «   আবারো ত্রিভুবনে ১৩৯ যাত্রী নিয়ে রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ল মালয়েশিয়ার বিমান  » «   ১২ মাস ভিজিএফ’র চাল ও নগদ অর্থ বিতরণ করে প্রমাণ হয়েছে এ সরকার কৃষি বান্ধব  » «   লন্ডন সিলেট ফ্রেন্ডশীপ অর্গানাইজেশনের মুকিত কে সংবর্ধনা  » «   মৌলভীবাজারে বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করলো ছেলে  » «   নগরী থেকে রবিউল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি নিখোঁজ  » «   জ্ঞানের রাজ্যে ভ্রমণের জন্য তো কোনো পাসর্পোট ভিসা লাগেনা–প্রণবকান্তি দেব  » «   কৃষি জমি রক্ষার দাবীতে ফতেহপুরবাসীর প্রতিবাদ সভা  » «   ‘কোটা পদ্ধতি তুলে নেয়ার এখতিয়ার প্রধানমন্ত্রীর নেই’ –মির্জা ফখরুল  » «   ‘বঙ্গভূম’ অ্যালবামের মোড়ক উন্মোচন  » «  

অভিবাসীদের নিয়ে ট্রাম্পের অশালীন মন্তব্য



আর্ন্তজাতিক ডেস্ক:: যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের নিয়ে অশ্লীল ও নোংরা মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

বৃহস্পতিবার ওভাল অফিসে দেশটির একদল সাংসদের সঙ্গে অভিবাসন নীতিমালা নিয়ে আলোচনায় তিনি প্রশ্ন তুলেন, কেন আমরা নোংরা দেশগুলো থেকে লোককে এখানে নিয়ে আসছি?

হাইতি, এল সালভাদর ও আফ্রিকার দেশগুলো নিয়ে ট্রাম্পের এই অশ্লীল মন্তব্য ছিল বলে ওয়াশিংটন পোস্টের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বিবিসি।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্টের এমন মন্তব্যে ডেমোক্রেট-রিপাবলিকান দুই শিবিরেই তীব্র সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

তবে হোয়াইট হাউজ এক বিবৃতিতে ট্রাম্পের বক্তব্যের পক্ষে সাফাই গেয়েছে।

হোয়ইট হাউজের বিবৃতিতে বলা হয়, ওয়াশিংটনের কিছু রাজনীতিক বিদেশি দেশগুলোর হয়ে লড়াইয়ের পথ বেছে নিয়েছে; অন্যদিকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ইচ্ছা সবসময়ই আমেরিকার জনগণের পক্ষে লড়াই করার।

এতে আরও উল্লেখ করা হয়, মার্কিন বর্তমান প্রশাসন অন্য অনেক দেশের মতো মেধা-ভিত্তিক অভিবাসনে আগ্রহী। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দেশকে শক্তিশালী করতে স্থায়ী সমাধানের পথে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। এ প্রেক্ষিতে যেন তাদেরই স্বাগত জানানো যায়, যারা আমাদের সমাজে অবদান রাখতে পারবেন, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখতে ও আমাদের মহান জাতির সঙ্গে একীভূত হয়ে যেতে পারবেন। অস্থায়ী, দুর্বল ও বিপজ্জনক পন্থায় নেয়া অভিবাসী যারা পরিশ্রমী মার্কিনিদের ও বৈধভাবে অভিবাসী হওয়া নাগরিকদের জীবনকে হুমকির মুখে ফেলে ট্রাম্প তাদের প্রত্যাখ্যান করতে চান বলেও বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

চলতি সপ্তাহে এক ঘোষণায় ট্রাম্প প্রশাসন আগামী বছরের মধ্যে তিন দশক ধরে অস্থায়ীভাবে যুক্তরাষ্ট্রে বাস করা সালভাদরের দুই লাখ লোককে দেশে ফিরে যেতে সময় দিয়েছে। ১৯৯১ সালে দেশটিতে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ের প্রতিক্রিয়ায় সেখানকার নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসের এই সুযোগ মিলেছিল।

সোমবার এক বিবৃতিতে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, তিন দশক আগে সালভাদরের ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত বেশিরভাগ অবকাঠামোর মেরামত সম্পন্ন হয়েছে, তাই দেশটির নাগরিকদের আর যুক্তরাষ্ট্রে অস্থায়ীভাবে বসবাসের প্রয়োজনীয়তা নেই।

এর আগে ট্রাম্প প্রশাসন যুক্তরাষ্ট্রে অস্থায়ীভাবে বসবাস করা হাইতি ও নিকারাগুয়ার নাগরিকদের টেম্পোরারি প্রটেক্টেড স্ট্যাটাসও (টিপিএস) প্রত্যাহার করে নিয়েছে।