বৃহস্পতিবার, ১৯ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
অংশগ্রহণমূলক জাতীয় নির্বাচন চায় ইইউ  » «   ছাতকে পানিতে ডুবে দু’বোনের মৃত্যু  » «   বিমানবন্দরে গণসংবর্ধনা: যুক্তরাজ্যে সংক্ষিপ্ত সফর শেষে দেশে ফিরলেন মিসবাহ সিরাজ  » «   জৈন্তাপুরে তথ্য অধিকার বাস্তবায়ন ও পরীবিক্ষণ উপজেলা কমিটির সভা  » «   প্রচন্ড গরমে পুড়ছে জগন্নাথপুর  » «   সিলেটে কাউন্সিলর প্রার্থীর প্রচারণায় হামলা : আহত তিন  » «   নির্বাচন ঘিরে নিরাপত্তা: উদ্বেগ, উৎকন্ঠায় সিলেট নগরবাসী  » «   এইচএসসি পরীক্ষায় বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ’র ধারাবাহিক সাফল্য  » «   কামরানের নৌকার সমর্থনে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে সভা  » «   আদালতপাড়া ও আখালীয়া এলাকায় টেবিল ঘড়ির সমর্থনে গণসংযোগ  » «  

বাঙালিদের অাসাম তাড়ালে আশ্রয় দেবে বাংলা: মমতা



আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: আসাম থেকে বাঙালিদের বিতাড়িত করা হলে পশ্চিমবঙ্গ তাদের আশ্রয় দেবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মঙ্গলবার আলিপুরদুয়ার জেলার কামাখ্যাগুড়িতে এক সভায় এ ঘোষণা দেন তিনি। মমতা বলেন, এসব ব্যক্তিকে আসাম সীমান্তের আলিপুরদুয়ার ও জলপাইগুড়ি জেলায় আশ্রয় দেওয়া হবে।

প্রতিবেশী রাজ্য আসাম থেকে বাঙালিদের বিতাড়িত করা হচ্ছে—এই অভিযোগ আগেই তুলেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই বিবৃতির পরে তার বিরুদ্ধে অাসামে মামলাও হয়েছে।

অাসামের সাম্প্রতিক নাগরিকপঞ্জিতে দীর্ঘদিন বসবাসকারী অনেকের নাম না থাকার কথা জানিয়ে এ দিন উদ্বেগও প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। তিনি বলেন, ‘এটা কী হচ্ছে! অাসামে ৩ কোটি ৩৯ লক্ষের নাগরিকপঞ্জি তৈরির কথা। অথচ ১ কোটি ৩৯ লক্ষের নাম নেই। এটা মানব না আগেই বলেছি। কারণ, এক রাজ্যের মানুষ আর এক জায়গায় থাকবেন, এটা আমাদের স্বাধীনতা। তাই এ বার বলছি, অাসাম থেকে কেউ এলে আশ্রয় দেব।’

এরপর আলিপুরদুয়ার ও জলপাইগুড়ির বাসিন্দাদের উদ্দেশে মমতা বলেন, ‘অাসাম থেকে কেউ অত্যাচারিত হয়ে এলে আশ্রয় দেবেন। ভালবাসবেন। এটাই বাংলার সংস্কৃতি।’

ভিন রাজ্যে থাকা বাঙালিদের জন্য চিন্তিত, সেটা বারবারই তূণমূল প্রধানের বক্তব্যে উঠে আসে। গুজরাটে গিয়ে যে বাঙালি শ্রমিককে প্রাণ হারাতে হয়েছে, তারও উল্লেখ করেন তিনি। সেই শ্রমিক মধু সরকারের মাকে আড়াই লাখ রুপি ক্ষতিপূরণও দেন তিনি।

তৃণমূলের একটি সূত্র বলছে, শুধু বাঙালিই বা কেন, মুখ্যমন্ত্রী তো অাসামে বসবাসকারী বিহারিদের প্রতিও সহানুভূতিশীল।

অনেকের মতে, অাসাম নাগরিকপঞ্জি তৈরি করে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নিলে স্বাভাবিকভাবেই বাংলার ওপরে চাপ বাড়বে। তাই আগে থেকে এই কথাগুলো বলে তাদের ওপরেই পাল্টা চাপ তৈরি করে রাখতে চাইছেন মমতা।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেন, ‘মনে রাখবেন, অাসাম ভালো থাকলে বাংলা ভালো থাকবে। বাংলা ভালো থাকলে অাসাম ভালো থাকবে।’ সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা