মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
নৌকা বিজয়ী হলে সমাজে সম্প্রীতির বন্ধন দৃঢ় হয় : কামরান  » «   ধানের শীষের সমর্থনে নগরীর বিভিন্ন জায়গায় নির্বাচনী পথসভা  » «   সাইফুর রহমান ডিগ্রি কলেজের প্রিন্সিপালকে হাসপাতালে দেখতে ইমরান আহমদ এমপি  » «   ছাতকে নবনিযুক্ত প্রধান শিক্ষকদের বরণ  » «   নৌকার পক্ষে সিলেটে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে: সরওয়ান হোসেন  » «   প্রবাসে বাঙালী সংস্কৃতি ও দেশীয় পণ্যকে তুলে ধরার প্রয়াসে নিউইয়র্কের ব্রঙ্কসে ঈদ আনন্দমেলা  » «   দেশকে এগিয়ে নিতে শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই: সামাদ চৌধুরী  » «   আরিফের গণসংযোগ: সুষ্ঠু, অবাধ নির্বাচন হলে জনগণ সত্যিকার নগর সেবককেই নির্বাচিত করবে  » «   স্বভাবে বিনয়ী কামরান কর্মে ফাটা কেষ্ট আরিফ !  » «   ইলিয়াস আলীর সন্ধান কামনায় ইলিয়াস মুক্তি যুব ও ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের দোয়া মাহফিল  » «  

ঢাকা জাতীয় নাট্যশালায় ‘নাট্যমঞ্চ সিলেট’র মুক্তিযুদ্ধের নাটক



‘বধ্যভূমিতে শেষদৃশ্য’র সফল মঞ্চায়ন
ডেস্ক নিউজ:: ঢাকার নাট্যদল নান্দনিক সম্প্রদায়ের গৌরবের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে গত বুধবার বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি জাতীয় নাট্যশালায় সিলেটের প্রতিশ্রুতিশীল নাট্যদল ‘নাট্যমঞ্চ সিলেট’ নাট্যশালা মঞ্চে সন্ধ্যা ৭টায় মঞ্চস্থ করে মুক্তিযুদ্ধের সময়কার গল্লামারি বধ্যভূমির পটুভূমির উপর নাটক ‘বধ্যভূমিতে শেষদৃশ্য’ কাজী মাহমুদুর রহমানের রচনায় নাটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন নাট্যকর্মী ও সংগঠক রজত কান্তি গুপ্ত। এই নাটকটির সপ্তম প্রদর্শনী ছিল এটি।

নান্দনিক নাট্যসম্প্রদায় আয়োজিত উৎসবের উদ্বোধন করেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর এমপি। উৎসবে নান্দনিক নাট্য সম্প্রদায়ের নাটক ‘মহাবিদ্রোহ ও স¤্রাট বাহাদুর শাহ’ ‘কিওপেট্রা’ কক্সবাজার থিয়েটার মঞ্চস্থ করবে ‘টু ইডিয়টস্’।

চারদিন ব্যাপী এই উৎসবে দ্বিতীয় দিন ঢাকার নাট্যমোদী দর্শকের উপস্থিতিতে নাট্যমঞ্চ সিলেটের নাটকটি উপস্থিত দর্শকের প্রশংসা পায়। নাটকে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময়ে গল্লামারি বধ্যভূমিতে মুক্তিযুদ্ধের সময়কার পাকিস্তানী গণহত্যা ও বিভিন্ন বিভর্ষতার চিত্র ফুটিয়ে তোলা হয়।

নাট্যমঞ্চ সিলেটের সফল মঞ্চায়ন শেষে নান্দনিক নাট্য সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে নাটকের নির্দেশক ও নাট্যমঞ্চ সিলেটের সভাপতি রজত কান্তি গুপ্তের হাতে উৎসব স্মারক তুলে দেওয়া হয়। নাট্যমঞ্চ সিলেটের পক্ষ থেকেও আমন্ত্রণকারী দলকে নাট্যমঞ্চের উৎসব উত্তরীয় ও স্মরণিকা তুলে দেওয়া হয়। নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন- বাপ্পী মজুমদার, মাহমুদ হাসান, ইয়ামিন ওসমান, মরিয়ম নুসরাত টুম্পা, কনক আচার্য্য, স্বর্ণা ব্যানার্জী, মুহিতুর রহমান রনি, অনুভব বাপ্পু, ইমরান ওসমান, কাজী শফিউল আলম ইমন, এ.এম মামুন-অর-রাফি, শরিফ উদ্দিন, আব্দুল আজিজ, কাওছার আহমদ, জাহিদ হাসান শুভ, কাজী মোঃ শাহজাহান, আবু জাহিদ ভূঁইয়া, খোশনুর আক্তার মৌমী, তাহেরা বেগম চৌধুরী, মাহমুদুল হাসান খান মাহী, মোঃ শফিকুল ইসলাম, এস.এম সাদিক, নয়ন খান প্রমুখ। নাটকে আলোক পরিকল্পনা ও প্রক্ষেপনে ছিলেন খোয়াজ রহিম সবুজ, শব্দ প্রক্ষেপনে ছিলেন শরীফ উদ্দিন তানু মিয়া ও বন্যা ব্যানার্জী। নাটকটি গ্রুপ সজ্জা করেন শুভাষীস দত্ত তন্ময়।