সোমবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১০ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
রাজনগরে সড়ক দুর্ঘটনায় সিলেটের আব্বাস, সুজেল ও সামাদ আহত  » «   সোহাদ রব চৌধুরীর ব্যাক্তিগত পক্ষ থেকে খেলার সামগ্রী বিতরণ  » «   সিলেটে ডুজি মোবাইল‘র যাত্রা শুরু  » «   ওয়ার্কার্স পার্টি জেলার উদ্যোগে কমরেড লেনিনের জন্মদিন পালন  » «   শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সাদা প্যানেলকে বিজয়ী করুন–আব্দুল বাসেত  » «   দিরাইয়ে হান্দুয়া বিলের ব্রিজ উদ্বোধনের আগেই ফাটল! ধ্বসে পড়ার আশংকা  » «   সিরিয়ায় ৫ হাজার ট্রাক অস্ত্র পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র!  » «   জগন্নাথপুরে গৃহবধুর আত্মহত্যা  » «   পুলিশ কাউকে হয়রানী করতে চায় না –অতি. ডিআইজি  » «   জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের বিক্ষোভ মিছিল  » «  

নিউ ইয়র্ক পুলিশকে যা বলেছে আকায়েদ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: নিউ ইয়র্কে সন্ত্রাসী হামলার পর হামলাকারী আকায়েদ উল্লাহকে (২৭) চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বেলেভু হাসপাতালে। অন্যদিকে তদন্তকারীরা তার সম্পর্কে তথ্য জানতে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে।

এমন জিজ্ঞাসাবাদে আকায়েদ উল্লাহ অনেক তথ্য দিয়েছে। বলেছে, অনলাইনেই সে শিখেছে বোমা বা বিস্ফোরক কিভাবে বানাতে হয়।

এরপর এক সপ্তাহ আগে সে ‘পাইপ বোমা’ বানায়। তবে এসব বোমা সে তার বাসায় বানিয়েছিল নাকি কর্মক্ষেত্রে তৈরি করেছিল তা নিয়ে দ্বিমত রয়েছে।

এক এক সংবাদ মাধ্যম এক এক রকম তথ্য দিচ্ছে। এরই মধ্যে তার পিতা, মাতা ও এক ভাইকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে নিউ ইয়র্ক পুলিশ। হামলার পর ব্রুকলিনের ফ্লাটল্যান্ডের বাড়িতে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় আশপাশের লোকজনকে।

এক পর্যায়ে স্কার্ফ পরা একজন নারীকে পুলিশের সঙ্গে দেখা যায়। ধারণা করা হয়, তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ নিয়ে যাচ্ছে। দেখা যায়, ওই নারীর দু’পাশে দু’জন পুলিশ অফিসার। তাকে তারা হাঁটিয়ে নিয়ে যাচ্ছে একটি গাড়ির দিকে। তবে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কিনা তা জানা যায় নি। আকায়েদ উল্লাহর আত্মীয়স্বজনকে জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশকে দেখা যায় ওশিন পার্কওয়েতে কেনসিংটন এলাকায় আরেকটি বাড়িতে। ওদিকে পুলিশের সোয়াত টিম প্রতিবেশী বা প্রত্যক্ষদর্শীদের তথ্য দিয়ে রহস্য উদ্ধারে সহযোগিতার জন্য আহ্বান জানিয়েছে।

নিউ ইয়র্ক পুলিশ বলেছে, তারা আকায়েদ উল্লাহর সঙ্গে যোগাযোগ ছিল এমন তিনটি বাড়িতে সার্চ ওয়ারেন্ট জারি করেছে। এর মধ্যে দুটি বাড়ি হলো কেনসিংটনে। একটি ফ্লাটল্যান্ডে। আকায়েদ উল্লাহ একটি ইলেকট্রিক কোম্পানিতে চাকরি করতে। ভাইয়ের সঙ্গে ওই প্রতিষ্ঠানে দেখা গেছে তাকে কাজে।