শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
সরকারি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষনের মাধ্যমে দক্ষ হতে হবে-নাজমানারা খানুম  » «   কমলগঞ্জে কালবৈশাখি ঝড়ে অর্ধশতাধিক ঘর আংশিক বিধ্বস্ত  » «   ধর্মপাশায় একটি পাগলা কুকুরের কামড়ে ১৫জন আহত  » «   সিলেটে কর্মশালা: দায়িত্বশীল সাংবাদিকতা অপরিহার্য  » «   ছাত্র সমাজের মধ্যে প্রকৃত আদর্শ বিলিয়ে দিতে হবে- মাহবুবুর রহমান ফরহাদ  » «   আবারো ত্রিভুবনে ১৩৯ যাত্রী নিয়ে রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ল মালয়েশিয়ার বিমান  » «   ১২ মাস ভিজিএফ’র চাল ও নগদ অর্থ বিতরণ করে প্রমাণ হয়েছে এ সরকার কৃষি বান্ধব  » «   লন্ডন সিলেট ফ্রেন্ডশীপ অর্গানাইজেশনের মুকিত কে সংবর্ধনা  » «   মৌলভীবাজারে বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করলো ছেলে  » «   নগরী থেকে রবিউল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি নিখোঁজ  » «  

হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালকে পূর্ণাঙ্গ হৃদরোগ হাসপাতালে পরিণত করা সম্ভব-মেয়র আরিফ    



ডেস্ক নিউজ:: সিলেট তথা এই অঞ্চলের হৃদরোগীদের কল্যাণে সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল যেভাবে হৃদরোগীদের সেবা প্রদান করে যাচ্ছে তাতে প্রবাসীসহ দেশের বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত।

সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালকে একটি পূর্ণাঙ্গ হৃদরোগ হাসপাতালে পরিণত করা সম্ভব।

সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে এনআরবি গ্লোবেল বিজনেস কনভেন্সশন ২০১৭ বিভিন্ন দেশ থেকে আগত প্রবাসীদের নিয়ে মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথির ভাষণে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী এই কথা বলেন।   তিনি আরও বলেন শুধু হৃদরোগ নয় যেকোন রোগ থেকে বেঁচে থাকার জন্য প্রতিরোধের প্রয়োজন।

তিনি বলেন আমাদের সবসময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার উপর গুরুত্ব আরোপ করা প্রয়োজন। এই প্রসঙ্গে মেয়র বলেন শহরে অবস্থারত প্রত্যেকটি হাসপাতালের সজাগ দৃষ্টি রাখা উচিত যেন যত্রতত্রভাবে হাসপাতালের ময়লা-আর্বজনা ফেলা না হয়। তিনি বলেন দেশের কল্যাণে, জনগণের কল্যাণে প্রবাসীরা যেভাবে এগিয়ে এসেছেন তাতে দুস্ত ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষ অনেক উপকৃত হবে।

  ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন সিলেট এর পাবলিসিটি সেক্রেটারী আবু তালেব মুরাদের পরিচালনায় এবং ফাউন্ডেশন এর সহ-সভাপতি এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরুতে হাসপাতালের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক  প্রফেসর ডা. মো. আমিনুর রহমান লস্কর।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অথিতি হিসাবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি ও হাসপাতাল ফান্ডরাইজিং কমিটির চেয়ারম্যান হাফিজ আহমদ মজুমদার, ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাষ্ট্রিজ এর প্রেসিডেন্ট এনাম আলী এমবিই এফআইএইচ এফআরএসএ, ডেপুুটি ডিরেক্টর জেনারেল হেলাল উদ্দিন খান, এনআরবি কবির ইয়াকুব ডিরেক্টর ড. সানোয়ার চৌধুরী, ভাইস প্রেসিডেন্ট এমএ কাইয়ুম ডিরেক্টর  সফিকুল ইসলাম সাবেক পেসিডেন্ট ও সিনিয়র এডভাইজার ড. ওয়ালী তছরউদ্দিন ডিরেক্টর আবুল হায়াত নুরুজ্জামান ডিরেক্টর কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর হক, ইউকে এডভাইজারী কমিটির চেয়ারম্যান মাহমুদুর রশীদ এনআরবি ইছবাহ উদ্দিন, নুরুল ইসলাম মো. শাহজাহান।

বিশেষ অথিতি ভাষণে হাসপাতাল ফান্ডরাইজিং কমিটির চেয়ারম্যান  হাফিজ আহমদ মজুমদার বলেন সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে অচিরেই অপারেশন থিয়েটার চালু করতে বিপুল অর্থের প্রয়োজন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন এনআরবিরার এই হাসপাতাল প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে যেভাবে সাহায্য সহযোগীতা প্রদান করে যাচ্ছেন তা সিলেটের হৃদরোগীদের কল্যাণে মাইলফলক হিসাবে কাজ করছে। এই হাসপাতাল পূর্ণাঙ্গ রূপ দিতে তাঁরা আরোও অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। হাফিজ আহমদ মজুমদার বলেন উদ্দেশ্য মহৎ হলে কোন কাজ কঠিন হয়না। তার প্রমাণ সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল।

বিশেষ অথিতি ভাষণে এনাম আলী এমবিই বলেন সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালসহ সিলেটের বিভিন্ন সেবা মূলক প্রতিষ্ঠানে এনআরবিরা অতিতেও ছিল আগামীতেও থাকবে। তিনি বলেন এই হাসপাতালে অপারেশন থিয়েটার চালুর জন্য সহযোগীতা প্রদানে প্রবাসীরা কখনো পিছপা হবেনা।

এনাম আলী ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাট্রিজ এর পক্ষ থেকে সর্বাত্মক সহযোগীতার আশ্বাস প্রদান করেন। মতবিনিময় সভায় ইউএসএ এনআরবি রানা ফেরদৌস চৌধুরী এক লক্ষ টাকা, এইসএম কর্পোরেশনের হেলেন আহমদ পঞ্চাশ হাজার, এনআরবি মতিন খান পঞ্চাশ হাজার, এনআরবি হেলান উদ্দিন খান পঞ্চাশ হাজার এবং এনআরবি সাংবাদিক তাইসির মাহমুদ পঞ্চাশ হাজার টাকা সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালের জন্য অনুদান গোষণা করেন।মতবিনিময় সভায় অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি ডাঃ আলতাফুর রহমান, ট্রেজারার জামিল আহমদ চৌধুরী, সাইনটিফিক সেক্রেটারী ডাঃ শামীমুর রহমান, অর্গেনাইজেশন সেক্রেটারী ইঞ্জিনিয়ার সোয়েব মতিন, কার্যকরী কমিটির সদস্য ডাঃ মোস্তফা শাহজামান চৌধুরী বাহার, আব্দুল মালিক জাকা, ডাঃ মোঃ আব্দুল হাই, আব্দুস সাত্তার এবং এডভোকেট চৌধুরী আতাউর রহমান আজাদ।