শুক্রবার, ২০ এপ্রিল ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
ছাত্র সমাজের মধ্যে প্রকৃত আদর্শ বিলিয়ে দিতে হবে- মাহবুবুর রহমান ফরহাদ  » «   আবারো ত্রিভুবনে ১৩৯ যাত্রী নিয়ে রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ল মালয়েশিয়ার বিমান  » «   ১২ মাস ভিজিএফ’র চাল ও নগদ অর্থ বিতরণ করে প্রমাণ হয়েছে এ সরকার কৃষি বান্ধব  » «   লন্ডন সিলেট ফ্রেন্ডশীপ অর্গানাইজেশনের মুকিত কে সংবর্ধনা  » «   মৌলভীবাজারে বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করলো ছেলে  » «   নগরী থেকে রবিউল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি নিখোঁজ  » «   জ্ঞানের রাজ্যে ভ্রমণের জন্য তো কোনো পাসর্পোট ভিসা লাগেনা–প্রণবকান্তি দেব  » «   কৃষি জমি রক্ষার দাবীতে ফতেহপুরবাসীর প্রতিবাদ সভা  » «   ‘কোটা পদ্ধতি তুলে নেয়ার এখতিয়ার প্রধানমন্ত্রীর নেই’ –মির্জা ফখরুল  » «   ‘বঙ্গভূম’ অ্যালবামের মোড়ক উন্মোচন  » «  

চুনারুঘাটে সালিশ বৈঠকে সংঘর্ষে আহত ১ জনের মৃত্যু



হবিগঞ্জ সংবাদদাতা: হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলা উলুকান্দি গ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জের সালিশ বৈঠকে দু’দল লোকজনের সংঘর্ষে আহত এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছেন।

সোমবার সকালে সিলেট এমএ জি উসমানি মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধিন অবস্থায় তার মৃত্যু। এ ঘটনায় আহত হয় নারীসহ আরও অন্তত ২৫ জন।

নিহত ব্যক্তি উলুকান্দি গ্রামের মৃত সুরুজ আলীর পুত্র তাহির মিয়া (৪০)। এ ঘটনায় গুরুত্বর আহত ৩ জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানি মেডিকেলে ও বাঁকিদের হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে বাড়িঘর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুরের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ওই গ্রামের আব্দুল আজিজ মিয়ার পুত্র ছমেদ মিয়ার সাথে একই এলাকার আব্দুল আলীর পুত্র ফয়সল মিয়ার জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল।
রবিবার বিকেল ৩টায় আব্দুল আলীর বাড়িতে উক্ত বিরোধের সালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই সময় জবানবন্দি দেয়ার সময় দু’পক্ষের লোকজন বাক-বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সন্ধার পর রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। ঘন্টাব্যাপী এ সংঘর্ষে বাড়িঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এতে আহত অন্তত ২৫ জন আহত হয়। স্থানীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব রজব আলীসহ স্থানীয় ময়মোরব্বিরা গুরুতর আহত অবস্থায় তাহির মিয়া (৪০), ফরহাদ (৫০), কাউছার আহমেদ (২২), তাউছ মিয়া (২৬), লিটন (৩৫), মিজান (১৮), রেজিয়া বেগম (৪০), এখলাছ মিয়া (১৮), ছমেদ মিয়া (৫০), ফয়সল আহমেদ (২৫), মিল্লাদ (১৬) কে সদর হাসপাতাল ভর্তি করা হয়।
এর মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাতে তাহির মিয়া, কাউছার আহমেদ, তাউছ মিয়াকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল প্রেরণ করেন। সেখানে চিকিৎসাধিন অবস্থায় সোমবার ভোরে তাহির মিয়া মারা যান।

এদিকে, সকালে তাহির মিয়ার মৃত্যু সংবাদটি তাহির মিয়ার লোকনের মধ্যে পৌঁছালে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। ফের সংঘর্ষ এড়াতে সহকারী পুলিশ সুপার মাধবপুর সার্কেল রাজু আহমেদ, চুনারুঘাট থাার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম আজমিরুজ্জামানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্তিতি শান্ত করেন।

সহকারী পুলিশ সুপার রাজু আহমেদ জানান, নিহতের সংবাদ আসার পর থেকে পুরুষশুন্য হয়ে পরে গ্রাম। শুন্য বাড়ি-ঘরে যেন কোন ধরণের অপ্রিতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়ছে।