বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

স্ত্রী ও ৪ সন্তানকে লন্ডন ফেলে রেখে বিয়ে করলেন ছাতকের মনির



নিজস্ব প্রতিবেদক : লন্ডন থেকে দেশে এসে একাধিক নারীর সাথে সম্পর্ক অবশেষে বিয়ে। এ নিয়ে যেনো অভিযোগের শেষ নেই লন্ডন প্রবাসী মনির উদ্দিনের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত মনির উদ্দিন সুনামগঞ্জের ছাতকের তাতীকোনার রুস্তম ভিলার মৃত রুস্তম আলীর ছেলে।

রুস্তম আলীর আত্মীয়দের দেয়া তথ্যে জানা গেছে, গত প্রায় এক বছর থেকে লন্ডনে স্ত্রী ও ৪ সন্তানকে রেখে সে দেশে অবস্থান করেন। এর মধ্যে একাধিক নারীকে নিয়ে ছাতকের নিজ বাড়িতে অবস্থান করেছে। গত ১০ দিন পূর্বে প্রথম স্ত্রীকে না জানিয়ে ছাতক দোয়ারাবাজারের কয়ছর আহমদের মেয়ে সায়েদা বেগমকে বিয়ে করে। এ ব্যাপারে লন্ডনে অবস্থানরত মনির উদ্দিনের প্রথম স্ত্রী নিলুফা বেগম জানান, আমার কোন অনুমতি ছাড়ায় দেশে গিয়ে সে আরেকটি বিয়ে করেছে বলে শুনেছি। প্রায় এক বছর পূর্বে বাবা অসুস্থ বলে দেশে গিয়ে সে আর ফিরে আসেনি। দেশে তার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারে বারবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেননা।

লন্ডনে বর্তমানে ১ ছেলে ও তিন মেয়েকে নিয়ে অবস্থান করছেন বলে জানিয়ে নিলুফা বেগম জানান, মনির আমার সন্তানদের সাথে প্রতারণা করেছে। দেশে আসলে তার বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় লিখিত অভিযোগ দিবেন ও লন্ডনের বৃটিশ হাইকমিশনেও অভিযোগ দিবেন বলেও জানান নিলুফা।
এ দিকে মনিরকে বিয়ে পাগল লন্ডনি দাবী করে তার এক নিকট আত্মীয় জানান, লন্ডন অবন্থানকালীন সময়ও সে বিভিন্ন মেয়েদের সাথে মিলামেশা করতো। দেশে আসার পর সে আরও বেপরোয়া হয়ে যায়।

বিভিন্ন জায়গায় অবিবাহীত পরিচয় দিয়ে মেয়ে দেখতেও যায় মনির উদ্দিন। এই সূত্র ধরেই বিভিন্ন সময় বেশ কয়েকজন মেয়ে নিয়ে ছাতকের বাড়িতে এসে অবস্থানও করেছে।

কয়েকদিন পূর্বে সে দোয়ারাবাজার এলাকার কায়ছর আহমদের মেয়ে সায়েদাকে প্রথম স্ত্রীর অনুমতি না নিয়েই বিয়ে করেছে। বর্তমানে নববিবাহিত স্ত্রী কে নিয়ে ছাতকের তাতীকোনায় রুস্তম ভিলায় অবস্থান করছে বলেও জানান তিনি।
এ ব্যপারে মনির উদ্দিনের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আপনি আমার নাম্বার কি ভাবে পেলেন ? প্রথম স্ত্রীর অনুমতি না নিয়ে বিয়ে কারার বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, আপনাকে কে অভিযোগ করেছে ? এরপরই তিনি ফোন হোল্ড করে রেখে দেন।