শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর

“মা” ভয় পেওনা, আংকেল আছি, আমার হাতটা শক্ত করে ধরো,



17884079_1332034353557020_934165588932529678_nসিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা সার্বিক পরিস্থিতির পরিচালনার স্বার্থে তদারকি করে থাকেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার এস.এম রোকন উদ্দিন।

অসৎ পুলিশ দেখতে দেখতে আমরা এতোটাই অভ্যস্ত, সৎ আর কাজের পুলিশ দেখলে আতকে উঠি। এই সমাজে বিশেষ করে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থেকে শতভাগ স্বচ্চ থাকা, সত্যিকারের দেশপ্রেমিক থাকা যে সম্ভব, আপনাকে না দেখলে, কাছ থেকে না জানলে অজানাই থেকে যেতো। এই করাপটেড, লোভি, উচ্চাভিলাসী সমাজে আপনি একটি দৃষ্টান্ত।

দায়িত্বকে আপনি দায়িত্ব ভেবেছেন। কিন্তু আমরা এটা দেখে অভ্যস্ত যে আমাদের রাষ্ট্রীয় অফিসে ‘দায়িত্বপ্রাপ্ত’ নিজেকে ‘ক্ষমতাপ্রাপ্ত’ ভাবেন। আপনি ব্যতিক্রম। কিভাবে সম্ভব এটা?

সম্প্রতি সিলেটের দক্ষিণ সুরমার শিববাড়ী এলাকার জঙ্গি আস্তানা আতিয়া মহলের সন্ধান পায় পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। আর সেখানে দৈনন্দিন কার্য হিসেবে গাড়ী যুগে যাচ্ছিলেন রোকন উদ্দিন স্যার। হঠাৎ পথিমধ্যে লক্ষ্য করলেন একটি মাদ্রাসা পড়োয়া ছাত্রী গাড়ীর ভয়ে রাস্তা পার হতে পারছে না। অনেকক্ষণ যাবত ভয়ে দাড়িয়ে আছে। তাৎক্ষণিক তিনি গাড়ী থামিয়ে, নেমে মেয়েটির দিকে এগিয়ে গিয়ে বললেন “মা” ভয় পেওনা, আংকেল আছি, আমার হাতটা শক্ত করে ধরো, তোমাকে রাস্তা পার করে দিচ্ছি। রাস্তা পার হবার আনন্দ মেয়েটির চোখে, মুখে আচ করা যাচ্ছিল। মেয়েটি হাসি-মুখে আংকেলকে ‘থ্যাংক ইউ’ বলে চলে গেল। আর তখনি সেই এলাকায় অবস্থান করা দৈনিক কালের কণ্ঠের আলোকচিত্রি আমিন রাব্বী দূশ্যটি ক্যামেরাবন্দী করেন।

17861608_1332034393557016_7421852307136318735_nপুলিশের উধ্বর্তন একজন কর্মকর্তার এমন ঘটনা তো দুর্লভ ঘটনা। এরকম শতশত দৃশ্য আমরা রাস্তাঘাটে পুলিশ এর দেখতে পাই। কিন্তু কালো চশমা পরিধানের কারণে তাঁদের (পুলিশ) প্রতিনিয়ত মানবসেবা মূলক কাজগুলো আমাদের চোঁখে পড়ে না।

কবি সেজুল হোসেন বলেন- নগরে থাকলে কী হবে, নগরের মানুষের ভাষা বুঝি না। তারাও বোঝে না আমায়। অথচ গ্রাম থেকে আসা একটা মানুষের প্রশ্বাসের ধ্বনিতে একসঙ্গে অনেকগুলো গল্প পড়তে পারি। কি হবে আমার এই নাগরিক ভুল জীবন নিয়ে?

মানবকল্যাণে তৃপ্তি পান দেহমনে! পুলিশ হবে জনবান্ধবময় এটাই উনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টা। এই দেশে পুলিশ বিভাগে একজন করে যদি রোকন উদ্দিন থাকে, দেশ বদলে যাবে।

লেখক: Mohammad Hafizur Rahman