সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
ফলিক খানের অর্থায়নে প্রধানমন্ত্রীর মিটানো নাম নতুন করে অঙ্কন  » «   গোলাপগঞ্জে যুবদলের ৩৯তম প্রতিষ্টা বার্ষিকী পালন  » «   বিএনপি নেতা এম কে আনোয়ারের মৃত্যুতে সিলেট সরকারি কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের শোক  » «   জগন্নাথপুরে টাকা দেয়া হলেও চাল দেয়া হয়নি  » «   জগন্নাথপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ব্যবসায়ী মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে  » «   ২৬ নং ওয়ার্ড তালামীযের অভিষেক ও প্রশিক্ষণ কর্মশালা সম্পন্ন  » «   সোশ্যাল মিডিয়ায় দুই নায়িকার মেকআপ রুমের ছবি ফাঁস!  » «   কমলগঞ্জে জাতীয় কন্যা শিশু দিবস পালিত  » «   জগন্নাথপুরে নুর আলীর খুনিদের ফাসির দাবিতে সোচ্চার এলাকাবাসী  » «   জগন্নাথপুরে সাংবাদিক কলির দাদীর মৃত্যুতে প্রেসক্লাবের শোক প্রকাশ  » «  

বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ॥শিক্ষকসহ আহত ৫



banibazar-legডেস্ক রিপোর্ট:  বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজে উপজেলা ছাত্রলীগের বিবদমান দুইটি পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ইট পাটকেল নিক্ষেপ ও চোরগুপ্তা হামলার ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার ১টার দিকে তুচ্চ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে আধঘন্টাব্যাপী এ সংঘর্ষ ঘটে। ছাত্রলীগের এ সংঘর্ষ কলেজ রোড এলাকায়ও ছড়িয়ে পড়ে।

ছাত্রলীগের সংঘর্ষের ঘটনায় শিক্ষার্থী, স্নাতক (পাশ) পরীক্ষার্থী, শিক্ষক ও কলেজ রোডের ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় আতংকিত শিক্ষার্থী স্নাতক (পাশ) পরীক্ষার্থীরা দিকবেদিক ছুটতে থাকেন।
জানা যায়, গত মঙ্গলবার উপজেলা ছাত্রলীগ পল্লবগ্রুপের কর্মী জুনেদ আহমদ শ্রেণির কক্ষের জানালার কাঁচ ভাংচুর করলে শিক্ষার্থীরা অধ্যক্ষের কাছে নালিশ দেন। এ নিয়ে সেদিন কয়েকজন শিক্ষার্থীদের সাথে জুনেদের বাগবিতন্ডা ঘটে। এসব শিক্ষার্থীরা ছাত্রলীগ মূলধারা গ্রুপের কর্মী।

আজ দুপুর একটার দিকে পল্লব গ্রুপের কর্মী জুনেদ আহমদকে কলেজ ফটকের কাছে পেয়ে মূলধারা গ্রুপের ছাত্রলীগ কর্মীরা সশস্ত্র অবস্থায় হামলা চালায়। এ সময় ছাত্রলীগ পল্লব গ্রুপের নেতাকর্মীরা এগিয়ে এলে ছাত্রলীগ নেতা সাহেদ আহমদকেও মারধর করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে ছাত্রলীগ পল্লব গ্রুপ। কলেজ চত্বরের উভয় পক্ষের মধ্যে ইট পাটকেল নিক্ষেপ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে ছাত্রলীগ পল্লবগ্রুপ ক্যাম্পাস ছেড়ে চলে গিয়ে প্রায় দশ মিনিট পর সংঘটিত হয়ে ক্যাম্পাসে এসে অবস্থা নেয়। সংঘটিত হয়ে আসার পথে ইনার কলেজ রোডে ছাত্রলীগ মূলধারা গ্রুপের নেতা ফায়েক আহমদকে একা পেয়ে পল্লবগ্রুপের সশস্ত্র কর্মীরা হামলা চালায়। এসময় কলেজের বাংলা বিষয়ের প্রভাষক মুনিরুল আলম আহত হন। পুলিশ জামান প্লাজা এলাকায় সশস্ত্র ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে ধাওয়া দেয় এবং লাঠিচার্জ করে। এসময় জিবান নামের এক ছাত্রলীগ কর্মী আহত হয়।

এদিকে সহকর্মী শিক্ষকরা খবর পেয়ে প্রভাষক মনিরুল ইসলামকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছেন। প্রভাষক মনিরুল ইসলাম বলেন, আমাকে কেউ আক্রমন করেনি। ছাত্রলীগের এককর্মী আহত অবস্থায় পালানোর সময় আমার উপর এসে পড়ে যায়। এতে আমি আঘাত পাই।

ছাত্রলীগ পল্লবগ্রুপের নেতা জাফর বলেন, গতকাল বুধবার কলেজ ক্যাম্পাসে আমাদের কর্মী জুনেদকে মূলধারা গ্রুপের রাব্বি, আব্দুলাহসহ কয়েখজন আটক করে মারধার করে। এ ঘটনা মূলধারা গ্রুপের বেলায়েত হোসেনকে জানাই। তিনি ছাত্রলীগ নেতা জাফরকে দায়িত্বদেন ঘটনাটি সমাধান করার। আজ সন্ধ্যায় কালকের ঘটনা সমাধান হওয়ার কথা। এর মধ্যে আজকে জুনেদকে তারা দা দিয়ে কুপিয়ে আহত করেছে।

মূলধারা গ্রুপের ছাত্রলীগ নেতা জাফর আহমদকে মোবাইল ফোনে পাওয়া যায়নি। একই গ্রুপের সিদ্দিকুর রহমান বলেন, কোন উত্তেজনা ছাড়াই পল্লবগ্রুপ সশস্ত্র হামলা চালিয়ে আমাদের ছাত্রলীগ নেতা কলেজের স্নাতক (পাশ) পরীক্ষার্থী ফাযেককে পিটিয়ে আহত করেছে।

বিয়ানীবাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) আবুল বাশার মোহাম্মদ বদরুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে কাউকে পাওয়া যায়নি। শহরের জামান প্লাজা এলাকায় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সংঘটিত অবস্থায় দেখে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয়। সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় কোন পক্ষ অভিযোগ দায়ের করেনি বলে তিনি জানান।

বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ দ্বারকেশ চন্দ্র নাথ বলেন, কলেজ ক্যাম্পাসে হালকা উত্তেজনা ছড়ালে পরিস্থিতি কিছু সময়ের মধ্যে স্বাভাবিক হয়ে ওঠে। শুনেছি কলেজের বাইরে দুই পক্ষ মারামারি করেছে। আমাদের একজন শিক্ষকও আহত হয়েছেন। তিনি বলেন, ঘটনার বিষয়ে তদন্ত করে দায়িদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।