মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ইউসুফ মালালা হয়ে ফিরে আসছে খাদিজা : পরাজিত হয়নি অপশক্তির হাতে



khadiza-11111111111111শামীম আহমেদ : বিশ্বজুড়ে সবারই মনে আছে পাকিস্তানের ইউসুফ মালালার কথা। খাদিজা ইউসুফ মালালা হয়েই ফিরে আসবে মা বাবার বুকে। আবারো হৈ-হুল্লোর করে মাতিয়ে তুলতে কলেজ ক্যাম্পাস। সবার মনে একটাই আকুতি, খাদিজা যেন ফেরেন সুস্থ হয়ে।
দেশের প্রতিটি মানুষের এখন একটি প্রার্থনা জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে থাকা খাদিজাকে যেন সৃষ্টিকর্তা সুস্থ করে ফিরিয়ে দেন তাঁর বাবা-মায়ের বুকে। খাদিজার হামলাকারী বদরুলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে সব ভেদাভেদ ভুলে এক কাতারে দাঁড়িয়েছেন সিলেটের সামাজিক সংগঠন, স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রী সহ রাজনৈতিক নেতারাও। তা প্রমাণ মেলে নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণের মানববন্ধন আর প্রতিবাদ সভা দেখে। সবার এখন একটাই চাওয়া, তাঁর উপর হামলাকারী বদরুল আলমের যেন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয়, জীবন আর মৃত্যুর মাঝখানে থাকা খাদিজা যেন সুস্থ হয়ে ওঠেন।
মা বাবার চোখের জল আর দেশবাসীর প্রার্থনা আল্লাহ কবুল করেছেন। খাদিজার শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। প্রায় প্রায়  ৪ দিন পর খাদিজা আক্তার নার্গিস চোখ মেলে তাকিয়েছেন। শনিবার (০৮ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান খাদিজার চিকিৎসক ডা. এ এম রেজাউস সাত্তার।
স্কয়ার হাসপাতালের অ্যাসোসিয়েট কনসালট্যান্ট রেজাউস সাত্তার বলেন, ৯৬ ঘণ্টা পর খাদিজার অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তিনি ডান হাত-পা নড়াচড়া করেছেন।  ডান চোখও খুলতে পেরেছেন। বিশেষজ্ঞ এ চিকিৎসকের আশা, বয়স কম হওয়ায় খাদিজার মস্তিষ্কের আঘাত ধীরে ধীরে সেরে যেতে পারে।
উল্লেখ্য, সেদিন (৩ অক্টোবর) পরীক্ষা দিতে এমসি কলেজে গিয়েছিলেন খাদিজা। ইসলামের ইতিহাস বিষয়ে পরীক্ষা শেষে ফেরার পথে কলেজ ক্যাম্পাসে তাঁর ওপর চাপাতি দিয়ে হামলা চালান শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহসম্পাদক ও অর্থনীতি বিভাগের ছাত্র বদরুল আলম। খাদিজার সুস্থ হয়ে ফিরে আসার অপেক্ষায় আছে তাঁর পরিবার। খাদিজা সুস্থ হয়ে ফিরে যাক সে প্রত্যাশা পুরো বাংলাদেশেরও। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের পাতায় পাতায় এখন খাদিজার জন্য শুভ কামনা। শুধু প্রার্থনা, ‘ফিরে আসবেন খাদিজা’।