বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

এযেন রাস্তা নয় মরণ ফাঁদ



1নাহিদুল ইসলাম, বিয়ানীবাজার থেকেঃ-
দীর্ঘ দিন হতে সংস্কার কাজ না হওযাতে বিয়ানীবাজার উপজেলার মুড়িয়া ইউনিয়ন ও পৌরসভার কিছু অংশ নিয়ে বেষ্টিত বহুল আলোচিত শহীদটিল্লা-ঘুঙ্গাদিয়া কাজিরবাজার-বড়দেশ সড়কটি মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে । স্কুল কলেজ হাসপাতাল কিংবা কর্মস্থলে যেতে পড়তে হয় চরম বিপদে। চারটি গ্রামের আট হাজার লোকের চলাচলের এ রাস্তাটিতে প্রতিদিনই কোন না কোন দূর্ঘটনা ঘটছেই। ভূক্তভোগিরা জানান সঠিক সময়ে সড়কটির সংস্কার কাজ করলে এ পরিস্থিতিতে পড়তে হত না। এক পথচারি জানান যেখানে বিয়ানীবাজার হতে ঘুঙ্গাদিয়া যেতে ১০-১৫ মিনিট সময় যাওয়ার কথা সেই স্থানে যেথে এখন সময় লাগে ৩০-৪০ মিনিট। এছাড়াও রয়েছে রাস্তা খারাপ হওয়ায় কারনে ভাড়া বিড়ম্ভনা। যেখানে সিএনজিতে প্রতি জনের ভাড়া ছিল ১০ টাকা সেই খানে ভাড়া ১৫-২০ টাকা পর্যন্ত দিতে হচ্ছে। সিএনজি চালকরা জানান রাস্তাটিতে একবার গাড়ী চালানোর পর গাড়ীটি ওয়াকসাব এ নিতে হয়। যার কারনে এই রাস্তাটিতে গাড়ী চালাতে আগ্রহ হারাচ্ছেন সিএনজি চালকরা। রাস্তাটি ৪ কিলোমিটারের মধ্যে এক কিলোমিটার পড়েছে পৌরসভার অধিনে। বাকী ৩ কিলোমিটার মুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের আওতায়। এ নিয়েও রয়েছে চরম বিভ্রান্তি। রাস্তাটি পদণি করলে দেখা যায় কিছুন পর পরই বড় বড় গর্ত যা যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী। তাই রাস্তার সংস্কার কাজের দাবীতে ফুসে উঠছে এলাকার ভূক্তভোগিরা। তাদের দাবী সময় পেন ও টাল-বাহানা না করে অতি দ্রুত সংস্কার কাজ শুরু করতে। দ্রুত সময়ে মধ্যে সংস্কার কাজ না হলে আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন অত্র চার এলাকার জনসাধারণ। অত্র এলাকারবাসীন্দা ও সমাজ সেবক মোঃ খসরুল হক খসরু জানান রাস্তাটির সংস্কার কাজ নিয়ে কিছু জটিলতা ছিল। আমরা কর্তৃপরে সাথে আলোচনা করে আসা করছি খুব দ্রুতই জনসাধারনের চলাচলের কথা চিন্তা করে রাস্তাটির সংস্কার কাজ শুরু হবে। আমরা ইতি মধ্যে এই জনপদের মাননীয় সংসদ সদস্য শিক্ষা মন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপরে পরামর্শ করে রাস্তার কাজ যাতে তাড়াতাড়ি হয় তার ব্যবস্থা করছি।