মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রকাশিত হয়েছে কবি জফির সেতু‘র ইয়েস, ইউ ব্লাডি বাস্টার্ডস!



01প্রকাশিত হয়েছে নব্বই দশকের শক্তিমান কবি জফির সেতু‘র কাব্যগ্রন্থ ‘ইয়েস, ইউ ব্লাডি বাস্টার্ডস’। এটি তাঁর ১২তম কাব্যগ্রন্থ। সিলেটের লামাবাজারস্থ ঘাস প্রকাশনা থেকে গতকাল শনিবার প্রকাশিত হয়েছে। এক ফর্মার বই হলেও এটি একটি ব্যতিক্রমধর্মী কাব্যগ্রন্থ। প্রকাশ কর্মকারের চিত্র অবলম্বনে প্রচ্ছদ করেছেন ইবনে মাহমুদ। এতে মোট প্যারা রয়েছে ৩১টি। নাম ভূমিকার পংক্তিটি বিশেষণের অতিশায়ন হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে ১৩ বার। ‘ভালো জিনিষ কম ভালো’- কথাটি কবি জফির সেতুর ‘ইয়েস, ইউ ব্লাডি বাস্টার্ডস’ কাব্যগ্রন্থের েেত্র যেন শতভাগ সত্য। যেমন প্রকরণে তেমনি বিষয়বস্তুতে।
মূলত কবি সাহিত্যিকরা কারো নির্দেশিত পথে হাঁটেন না, তাঁরা নিজেরা পথ সৃষ্টি করে নেন। কবি জফির সেতুও সেরকমই একজন কবি। যদিও তাঁকে কবি বললে তাঁর অন্যান্য প্রকাশিত গ্রন্থগুলোকে অস্বীকার করা হয়!
‘ইয়েস, ইউ ব্লাডি বাস্টার্ডস’ কাব্যের নামকরণটি অবশ্যই ব্যতিক্রম। ইংরেজি ভাষায় ব্লাডি, বাস্টার্ডস’ কথাটি একটি জঘন্য গালি হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এখন এ গালিটি কেবল ইংরেজি ভাষাতেই সীমাবদ্ধ নয়, সংস্কৃতির মিথস্ক্রিয়া তথা ভাষার মিথস্ক্রিয়ার ফলে এখন এ গালিটি বাংলা ভাষার নিজস্ব শব্দ।
কাব্যে মূলত এ গালির মধ্যে দিয়েই ফুটে উঠেছে সমাজের উচ্চ শ্রেণির প্রতি দলিত মানুষ তথা নিম্ন শ্রেণির প্রচন্ড ােভ, ঘৃণা। সমাজের কীটদের তিনি নানা ভাবে চিহ্যিত করে তিরস্কার করেছেন। তুলে ধরেছেন তাদের বিচিত্র রং রূপ। কাব্যের বিষয়বস্তুর পরিসর খুবই ব্যাপক। এটি শুধু দেশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকেনি। সমস্ত পৃথিবীই যেন কবিতার প্লট।
তাঁর কাব্যে ভাষার সরলীকরণও নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে। এই কয়েকটি পংক্তিই তার প্রমাণ রাখে- তুমি কি একটা ব্যক্তি? তুমি একটা গোষ্ঠী? তুমি কি একটা আদর্শ? তুমি কি একটা চক্র? নাকি তুমি খোদ রাষ্ট্র? তোমারও জিহ্বা আছে? চোখ আছে দুইটা? নখ আছে?
আছে গোপনাঙ্গ? লিকলিকে শিড়দাঁড়া?। হ্যাঁ , আমি তোমাকেই বলছি। তোমাকে মানে আপনাকে বলছি, আপনাকে মানে তোকে বলছি, তোকে মানে তোমাকে বলছি, তোমাকে মানে তোমাদের বলছি। ইয়েস, ইউ ব্লাডি বাস্টার্ডস’!
প্রসঙ্গত, কবি জফির সেতু ১৯৭১ সালের ২১ ডিসেম্ভর সিলেটের কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার অখ্যাত গ্রাম ফেদারগাঁওয়ে জন্মগ্রহণ করেন। পড়াশোনা করেন সিলেট এমসি কলেজ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে।
জফির সেতু একাধারে কবি, গল্পকার ও গবেষক। সিলেটি উপভাষার সমাজভাষা বৈজ্ঞানিক গবেষণা করে ২০০৯ সালে লাভ করেন পিএইচডি ডিগ্রি।
জফির সেতুর এ পর্যন্ত প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা ১২টি। পেশাগত জীবনের প্রথম দিকে জফির সেতু বাংলাদেশ ক্যাডার সার্ভিসের অন্তর্ভুক্ত হন। পরে শিক হিসেবে যোগ দেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে। শ্রেণিক ও শ্রেণিকরে বাইরে তিনি একজন মুক্তবুদ্ধিসম্পন্ন বিজ্ঞানমনস্ক স্বাধীনচেতা মানুষ। কবিতাচর্চা করছেন দেড়যুগেরও বেশি সময় ধরে। স্বর ও সুরের বহুমাত্রিকতা সমকালীন কবিতায় তাকে স্বতন্ত্র মর্যাদা দিয়েছে। তিনি সম্পাদনা করেন গোষ্ঠীপত্রিকা কথাপরম্পরা ও লিটলম্যাগ সুরমস। উল্লেখ্য, বইটি সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন সৃজনশীল লাইব্রেরীতে পাওয়া যাবে।