শুক্রবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৪ ১৪২৬   ২০ মুহররম ১৪৪১

৩৫০৫

লন্ডনে প্রবাসীদের বিশ্বকাপ উৎসব!

প্রকাশিত: ৭ জুন ২০১৯ ২৩ ১১ ৩৩  

নিউজ ডেস্ক:: বাংলাদেশে ঈদ নিয়ে যত নাটকীয়তা হয়েছে- ইংল্যান্ডে এসবের বালাই নেই। আর সব ইউরোপিয়ান দেশগুলোর মতো তারাও সৌদি আরবকে অনুসরণ করে ধর্মীয় এই উৎসবটি পালন করে থাকে। ফলে আগেই জানা হয়ে গিয়েছিল ৪ জুন উদযাপিত হবে ঈদ। তবে কেমন হয় ইংল্যান্ডের ঈদ? সেই কৌতুহল মেটাতে কথা হয় বেশকিছু প্রবাসী বাংলাদেশির সাথে।
এখানে ১০ বছর ধরে থাকা আসাদ বলছিলেন সাধারণত নিজেদের মতো করে পরিবারকে সাথে নিয়েই হয় ঈদ উদযাপন।
''কারো ছুটি মেলে তো কারো মেলে না। সেক্ষেত্রে সকালে ঈদের নামায পড়ে কেউ কাজে যোগদান করছেন, আবার কেউবা কাজ শেষ করে এসে পরিবারকে নিয়ে সময় কাটাচ্ছেন কিংবা আত্মীয় স্বজনের সাথে দেখা করছেন। বড় জামাতটা হয় ইস্ট লন্ডন মসজিদে। এছাড়া বিভিন্ন পার্কেও অনুষ্ঠিত হয় ঈদের নামায" বলছিলেন আসাদ।
এছাড়া ঈদের কিছু আনুষ্ঠানিকতা তো করতেই হয়। তাই তো ঈদের সপ্তাহখানিক আগে থেকে ভিড় বাড়ে ইস্ট লন্ডনের মুসলিম অধ্যুষিত এলাকার দোকানগুলোতে। ঈদের আগের রাতে বড়সড় উৎসবই হয় গ্রিন স্ট্রিট, ব্রিকলেন, আপটন পার্কসহ বিভিন্ন এলাকায়। পাকিস্তানি, ভারতীয় ও অন্যান্য দেশের মুসলমানদের সাথে বাংলাদেশিরাও মেতে ওঠেন মেহেদী উৎসবসহ নানা আয়োজনে। প্রায় সব মুসলমানদের বাড়িতেই একটু বিশেষ কিছু রান্নাও হয়।
ঈদের দিন সকাল থেকেই লন্ডনের স্বাভাবিক ব্যস্ত নাগরিক জীবন। এর মাঝেই নতুন পাঞ্জাবি পড়া বিভিন্ন দেশের মুসলমানদের সহজেই আলাদা করে চোখে পড়ে। হয় নামাজে যাচ্ছেন কিংবা নামাজ থেকে ফিরছেন। টিউবেও দেখা মেলে ঈদের পোশাকে থাকা পুরুষ ও নারীদের।
তবে ঈদের এই স্বাভাবিক উদযাপনে এবার যোগ হয়েছে বিশ্বকাপ ক্রিকেট। আর সেটাই প্রবাসীদের আনন্দ যে বহুগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে তাতে কোন সন্দেহ নেই।

বাংলাদেশকে সমর্থন জানাতে মাঠে ছিলেন সিলেট এক তরুণ এমাদ আহমদ সবুজ।   তার ঘায়ে ছিল বাংলার রয়েল বেঙ্গল টাইগার এর পোষক।   এই পোষাকে অনেকে তাকে দেখে আনন্দিত হয়েছেন এবং উৎসাহিত হয়েছেন।   এমাদ আহমদ জানান, এই পোষাক পরে তার খুব ভালো লাগছিল, এবং এই দিন বাংলাদেশ জয় লাভ করে।   তিনি বিষণ খুশি

''এবারের ঈদের আমেজটাই অন্যরকম। ঈদের সময় মাঠে বসে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দেখার সুযোগ আমার আগে হয়নি।'' বাংলাদেশের জার্সি পড়ে কথা গুলো বলার সময় আনিসুরের চোখ মুখ আনন্দে উজ্জ্বল। ওভালে হাজির হওয়া হাজারো বাংলাদেশির এই একই সুর। বিদেশে বসে নিজ দেশকে সমর্থন করার আনন্দটাই যে অন্যরকম।

Dream Sylhet
ড্রীম সিলেট
ড্রীম সিলেট
এই বিভাগের আরো খবর