সোমবার   ১৯ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৩ ১৪২৬   ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

৮৩

‘ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে দুই সিটি করপোরেশনই ব্যর্থ’

প্রকাশিত: ২৮ জুলাই ২০১৯ ২২ ১০ ০৮  

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সওকত মাহমুদ বলেছেন, জালিয়াতি এবং মধ্যবর্তী নির্বাচনের পর থেকে বিএনপিরা আন্দোলনে আছে। কিন্তু শব্দটা নানা ধরনের ব্যঞ্জন আছে। তিনি বলেন, কখনও আন্দোলন আসে কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে আবার কোথাও সমাবেশের মধ্য দিয়ে। এভাবেই বিএনপি আন্দোলনের পথিকৃৎ স্তর অতিক্রম করছে।

শুক্রবার (২৬জুলাই) রাতে একটি বেসরকারি টেলিভিশন টকশো অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

সওকত মাহমুদ বলেন, সত্যিকার অর্থে দেশে একটি শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থা বিরাজ করছে। ডেঙ্গু মশা নিয়ন্ত্রণে সিটি কর্পোরেশন গুলো যে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে এ নিয়ে জনগণের ক্ষোভ তো থাকবেই। এনিয়ে রাজনৈতিক দলগুলো কথা বলতেই পারে। একই সঙ্গে ছেলেধরা আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি এটা নিয়েও কথা বলতে পারে।’ডেঙ্গু পরিস্থিতি বন্যা এবং গণপিটুনি একই সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি, সব মিলিয়ে দেশে একটি শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থা তৈরী হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি বিভাগীয় সমাবেশ দিয়েছে শুধু দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য। তাকে মিথ্যা মামলায় যে শাস্তি দেয়া হয়েছে সে শাস্তি কাম্য নয়। এদিকে আইনি লড়াইয়ের ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে এমন বিলম্বিত প্রক্রিয়া গ্রহন করা হচ্ছে তাতে করে সুরাহা পাওয়া সংশয় দেখা দিয়েছে। সেই কারণে বিএনপি এই সমাবেশগুলো ডেকেছে। লোকসমাগমের দিক থেকে নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণের দিক থেকে সমাবেশেগুলো বিএনপি অত্যন্ত সফল হয়েছে। খুলনায়, চট্টগ্রাম এর আগে বরিশাল সমাবেশ হয়েছে। সমাবেশের মধ্য দিয়ে যেই দাবি উঠে আসছে বাংলাদেশে বরাবরই রাজনৈতিক দলগুলোর দাবি সমাবেশের মধ্য দিয়েই, জনগণের অনুভূতির মধ্য দিয়ে প্রকাশ পায়। এটা হওয়ার পর আন্দোলন কর্মসূচি দেয়া হয়। এই সমাবেশ থেকে যেই দাবি উত্থাপিত হয়েছে এই সম্পর্কে সরকার যদি কিছু না করে তাহলে আন্দোলনের বাস্তব প্রতক্ষ কর্মসূচী দেয়া হয়।

বিএনপির এ ভাইস চেয়ারম্যান বলেন, চূড়ান্ত আন্দোলনের প্রস্তুতি হিসেবে এবং নেতাকর্মীদের উদ্দীপ্ত করার জন্য বিভাগীয় সমাবেশ দেয়া হচ্ছে। আমি মনে করি এই বিভাগীয় সমাবেশের মধ্য দিয়ে নেতাকর্মীদের উদ্দীপ্ত করতে পেরেছে বিএনপি। অর্থাৎ একটি চুড়ান্ত আন্দোলনের ক্ষেত্র তৈরি করছে।

‘যখন বিএনপির কর্মসূচিগুলো দেয়া হয়েছে তখন দেশে বন্যা আসেনি। গণপিটুনি, ছেলেধরা সন্দেহে মানুষ পিটিয়ে মেরে ফেলা এবং একই সঙ্গে ডেঙ্গুর ঘটনাগুলো ঘটেনি। আজকে ডেঙ্গু মশার প্রকোপ এরকম বেড়েছে।

বিএনপি এবার নিশ্চিত ভাবে আন্দোলন করবে। আর বিএনপির আত্মবিশ্বাস আছে এবার আন্দোলনে তারা সফল হবে এবং বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবে বলেন শওকত মাহমুদ।

তিনি বলেন, বিএনপি বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য বৈঠক করেছে এবং ত্রাণ বিষয়ক কমিটি গঠন করেছে। পাশাপাশি রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশ বন্যার কারণে স্থগিত করেছে।

‘এদিকে কিছুদিন আগে শেয়ার বাজার থেকে ২৭ হাজার কোটি টাকা উধাও। বিনিয়োগকারীরা যারা সর্বস্ব খুইয়ে ফেলেছে। তারা যাদি আজকে মতিঝিলে মিছিল বের করে তাহলে কি সেটা অন্যায় বলবেন? যে এখন ডেঙ্গুতে লোক মারা যাচ্ছে এজন্য তারা কি এখন মিছিল বের করবে না? কিন্তু আপনি এটায় বাঁধা দিতে পারবেন না, কারণ তাদের অনুভূতি অন্যরকম।’

বিভাগীয় যেই সমাবেশ গুলো হয়েছে এর মাধ্যমে আমরা অনুপ্রাণিত হয়েছি। যে জনগণ এবং নেতাকর্মীরা আন্দোলনে অংশ নেবে এমন আশা ব্যক্ত করেন বিএনপির নেতা।

Dream Sylhet
ড্রীম সিলেট
ড্রীম সিলেট
এই বিভাগের আরো খবর