শনিবার   ১৭ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ২ ১৪২৬   ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

৪৮৬

ডিজিটাল যুবলীগে এনালগ কূটকৌশল: বোমা ফাটালেন জাকির

প্রকাশিত: ১৯ জুলাই ২০১৯ ১৬ ০৪ ৫৮  

যুবলীগ নেতা জাকিরুল আলম জাকির খোলা চিঠিতে যা বললেন:

বরাবর ,জনাব আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী
মাননীয় চেয়ারম্যান মহোদয়,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ

শ্রদ্ধেয় চেয়ারম্যান স্যার, পূণ্যভূমি হযরত শাহজালাল (রহ.) মাটিতে তারুণ্য নির্ভর মেধা সম্পন্ন নেতৃত্ব রুখতে গোপন ওয়ার্ড কমিটি করে উল্লেখযোগ্য কিছু সংখ্যক মেধাবী নেতৃত্ব ব্যতীত বেশিরভাগই মেধা বিহীন অশিক্ষিত ,অপরাধী ,বিএনপি-জামাত পরিবারের সন্তান, এবং অযোগ্যদের “ভোট দিবে এমন কমিটমেন্টে” ওয়ার্ড কমিটিতে স্থান দিয়েছেন চেয়ারে বসে থাকা “শুধুমাত্র একজন আহবায়ক এবং দুইজন যুগ্ম আহ্বায়ক” গভীর রাতের আলৌকিক ওয়ার্ড কমিটি এবং কাউন্সিলর করে নেতৃত্ব নির্বাচন করলে হুমকির মুখে পড়বে আপনার “স্বপ্নের ডিজিটাল যুবলীগ”

শ্রদ্ধেয় চেয়ারম্যান স্যার , আমরা রাজনীতির মাধ্যমে রাজনীতিক হওয়ায় বিশ্বাসী, আমাদের সম্বল ত্যাগ-তীতিক্ষা, আর্দশিক বিজয়ের লক্ষ্যে, রাজপথের সংগ্রামে ,জীবনবাজী রাখার ইতিহাস রয়েছে আমাদের,সেকারনে দলের দুঃসময়ে জুলুম নির্যাতনের শিকার, মেধাবী রাজনীতিক সহযোদ্ধাদের মূল্যায়ন-ই আমাদের একমাত্র দাবী,দীর্ঘ পাঁচটি বছর ধরে মেধাবী এবং দক্ষ সংগঠক হিসেবে পরিচিত কমিটির সদস্যদের বাইপাস করে , মহানগর যুবলীগের সাংগঠনিক ভিত্তিকে সীমাবদ্ধ রাখা হয়েছে কাগজ কলমে অতি গোপনে,তিন রথী-মহারথীর একান্ত সীমাবদ্ধতায়,সেই ব্যর্থতায় তিরস্কারের পরিবর্তে এই পদবী লোভী চক্র পুনরায় যুবলীগের নেতৃত্বে ফিরে আসতে মরিয়া হয়ে উঠেছে, মিষ্টি মধুর চেয়ারের মায়া কিছুতেই হারাতে চাইছেন না বর্তমান নেতারা ,সম্প্রতি অতি গোপনে “উপরে উল্লেখিতদের” অর্ন্তভূক্ত করে ওয়ার্ড কমিটি গঠন করে নিজস্ব “ভোট ব্যাংক” গড়ে তুলেছেন, ৯০ দিনের আহবায়ক কমিটি ৫ বছরেও পূর্নাঙ্গ কমিটি সহ ২৭টি ওয়ার্ড কমিটি গঠনে চরমভাবে ব্যর্থ হয়েছিল তারা, সেই আহবায়ক কমিটি কিভাবে দ্রুত অতি গোপনে পকেট কমিটি করতে সমর্থ হলো এমন কি “আগের করা ওয়ার্ড কমিটিগুলো ফেরত এনে পুনরায় নামের রদবদল করা হয়েছে” শুধুমাত্র পকেট ভোট নিশ্চিত করতে ,এই সিদ্ধান্তের মালিক একমাত্র আহবায়ক ও ২জন যুগ্ম আহবায়কের, তাদের একজন “সভাপতি অপর একজন সাধারন সম্পাদক প্রার্থী” বিগত পাঁচটি বছর মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্যদের বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ইচ্ছামত নিজের খায়েশ মিটিয়েছেন আহবায়ক এবং দুইজন যুগ্ম আহ্বায়ক, 2/4 জন অবশ্য মাইক ব্যবহারের সুযোগ পেয়েছিলেন তবে অন্ধকারের কাজ দরজা বন্ধ করেই করেছেন যুবলীগের সেই তিন রত্ন

শ্রদ্ধেয় চেয়ারম্যান স্যার,ব্যক্তি খায়েশে পদবী আয়ত্বের অপচেষ্টা শুধু নয়, যুবলীগের ঐতিহ্যপূর্ণ রাজনীতিকে তারা চ্যালেঞ্জ ছুড়েছে, ত্যাগ তীতিক্ষার রাজনীতিক মন্ত্রের অপমৃত্যু ঘটিয়ে তারা রাজপথের নিবেদিত কর্মীদের দেখিয়ে দিচ্ছে, সিলেট মহানগর যুবলীগে “করাউল্লাদের মূল্যায়ন নেই”, আমরা কেন্দ্রে প্রেরিত পাঁচ বছরে পকেট মোটাতাজাকারি নেতাদের” আলৌকিক “কাউন্সিলর তালিকাকে কোন অবস্থায় মেনে নেব না ,ত্যাগের মূল্যায়নে তারুন্য নির্ভর কমিটি প্রত্যাশিরা,মোটকথা পদলোভীদের যেকোন কোন আস্ফলনের দাঁত ভাঙ্গা জবাব দিতে সামগ্রিকভাবে প্রস্তুত, দলের দুঃসময়ে ত্যাগী সৈনিকেরা
পদবীর মোহে অন্ধ নেতারা,নতুন নেতৃত্ব প্রত্যাশি কর্মীদের মনোবল, আস্থা দূর্বল করতে ,কৌশলে ছড়াচ্ছেন “স্পিড মানি” দিয়ে নিশ্চিত হবে কমিটির ভবিষ্যত,দল ও পদবী কে আঁকড়ে ধরে, ব্যাবসায়িক দ্বারা অব্যাহত রাখার চেষ্টায় ব্যস্ত, তাদেরকে বাদ দিয়ে নতুন ধারার কিছু করলে ধ্বংসের হাত থেকে বেঁচে যাবে, আপনার “স্বপ্নের যুবলীগ”

শ্রদ্ধেয় চেয়ারম্যান স্যার, গ্রহণযোগ্য রাজনীতিক অতীত প্রোপাইল না থাকা স্বত্ত্বেও মহানগর যুবলীগের পদবী কুক্ষিগত করতে অস্তিত্বহীন যুবকদের ওয়ার্ড কমিটিতে অন্তর্ভুক্তি করা হয়েছে, ৯০দিনের আহবায়ক কমিটি দীর্ঘ ৫ বছরে কমিটি পূর্ণাঙ্গ সহ ওয়ার্ড কমিটি গঠনে ব্যর্থতার পরও কাউন্সিল উপলক্ষে তড়িঘড়ি করে গোপনে নিজস্ব পকেট কমিটি গঠনের মাধ্যমে অর্থ আদায় ও বিরোধী রাজনীতিক ক্যাডারদের লালন পালন,নতুন নেতৃত্ব রুখতে অর্থের বিনিময়ে কমিটি গঠনের অপপ্রচার করে দল ও নেত্বত্বের ইমেজকে প্রশ্নবিদ্ধ করা হচ্ছে,আহবায়ক ও দুজন যুগ্ম আহবায়ক কর্তৃক কাউন্সিলের মাধ্যমে নেতৃত্ব গঠনের ডিজিটাল উদ্যোগকে বানচাল করে পদবী দখলের টার্গেটে অর্থ নির্ভর ও আদর্শিক বিরোধী অপরাধীদের অন্তর্ভুক্ত করে গোপন ওয়ার্ড কমিটি গঠনের নগ্ন প্রচেষ্টা কোন মতেই সমর্থন করতে পারছে না দলের ত্যাগী নেতৃবৃন্দ

সিলেট মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্যসহ শত শত ত্যাগী কর্মীর মনের আকুতি, ২৭ জুলাই সম্মেলন ও পরবর্তীতে কাউন্সিল নিয়ে যুবলীগের ইমেজ ধ্বংসে লিপ্ত, রাজনীতিক মন্ত্রকে অস্তিত্বহীন করে তোলার নজিরবিহীন অপচেষ্টার বিরুদ্ধে দলের নিবেদিত কর্মীরা” প্রিয় সংগঠন যুবলীগ কে বাঁচাতে” শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করতে প্রস্তুত রয়েছে, আপনার বহু কষ্টের ফসল “ডিজিটাল যুবলীগ” রক্ষা করতে ,আপনার বাস্তবসম্মত পদক্ষেপের আশায় দলের ত্যাগী কর্মীরা, একমাত্র আপনি আমাদের ভরসা, মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন আপনাকে ভালো রাখুন সুস্থ রাখুন, আমিন

বিনীত
জাকিরুল আলম জাকির
প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সিলেট মহানগর ছাত্রলীগ
সাবেক সদস্য ও সিলেট মহানগর যুবলীগ(2005-2013)
বর্তমান সদস্য ,সিলেট মহানগর যুবলীগ, আহবায়ক কমিটি
বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ‘নৌকা প্রতীকে’ প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী

Dream Sylhet
ড্রীম সিলেট
ড্রীম সিলেট
এই বিভাগের আরো খবর