রোববার   ২০ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৪ ১৪২৬   ২০ সফর ১৪৪১

৯১

চৌকিদারের দাপটে ফেঞ্চুগঞ্জে গ্রামছাড়া পরিবার

দুই বছর থেকে বাড়ি ফেরেননি শহীদ   

প্রকাশিত: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৩ ০১ ০৮  

মুহাম্মদ হাবিলুর রহমান জুয়েল, ফেঞ্চুগঞ্জ:: সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার গ্রাম পুলিশ (চৌকিদার) মখদ্দস আলীর দপট নির্যাতনে এলাকা ছাড়া প্রতিবেশী পরিবার। অভিযুক্ত চৌকিদার মখদ্দস আলী উপজেলার ঘিলাছড়া ইউনিয়নের আশিঘর গ্রামের তমই আলীর পুত্র। ভুক্তভোগী পরিবারের আব্দুস শহীদ জানান, গত বছর চৌকিদার মখদ্দস আলী তার বাড়িতে ঢুকে বৃদ্ধ বাবাকে আক্রমণ করেন। এর পরবর্তীতে বাড়িতে লুটপাট চালান। চৌকিদার মখদ্দস আলীর এমন নির্যাতনে তারা এলাকা ছেড়ে সিলেট শহরে চলে যান। আক্রমণ ও লুটপাটের মামলায় আদালত মখদ্দস আলীকে দুইবার জেলদন্ড দেন। তার পর বেরিয়ে এসে আবারও এলাকায় প্রভাব খাটিয়ে জোর জুলুম চালায় চৌকিদার মখদ্দস আলী। ভুক্তভোগী আরো জানান, তারা সিলেটে থাকার সুবাদে বাড়ি খালি পেয়ে গত ৫ই সেপ্টেম্বর রাতে লুটপাট করে চৌকিদার মখদ্দস আলী। এ ব্যাপারে তারা ফেঞ্চুগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। এ ব্যাপারে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার জসিম উদ্দিন বলেন, আমাদের সভায় এ বিষয়ে আলাপ হয়েছে এবং ফেঞ্চুগঞ্জ থানাকে বলা হয়েছে ভুক্তভোগী পরিবার কে নিরাপত্তা দিতে। 
বিষয়টি নিয়ে অভিযুক্ত মখদ্দস আলীর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ব্যপারটি মিথ্যা দাবি করেন। তিনি জানান, শহীদের সাথে আমার দীর্ঘ দিনের একটি ঝামেলায় মামলা চলমান। কিন্তু এর কারণ জানতে চাইলে তিনি  সে ব্যপারে কোন বক্তব্য দিতে রাজি হননি। এছাড়াও গত ০৫ সেপ্টেম্বর অভিযোগকারীর বাড়িতে লুটপাটের ঘটনা অস্বীকার করলেও যখন তাকে প্রশ্ন করা হয় কেন তিনি জেলে গিয়েছিলেন তখন তিনি উত্তেজিত হয়ে পড়েন।
স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আশিঘর গ্রামের একজন বাসিন্দা জানান, মখদ্দস দুই বছর আগে এলাকার তাহমিনা হত্যার সঙ্গেও জড়িত ছিল। কিন্তু তার বিশেষ ক্ষমতাবলে চার্জশিটে তার নাম অন্তর্ভুক্ত হয়নি। এছাড়াও এলাকায় মাদক ব্যবসা থেকে শুরু করে প্রত্যেকটি অনৈতিক কাজের সঙ্গে তিনি জড়িত বলে জানান। বিষয়টির ব্যপারে অভিযোগ যথাযথ হলে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন ফেঞ্চুগঞ্জ থানার ওসি মোঃ বদরুজ্জামান।

Dream Sylhet
ড্রীম সিলেট
ড্রীম সিলেট
এই বিভাগের আরো খবর