শনিবার   ১৯ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৪ ১৪২৬   ১৯ সফর ১৪৪১

১৬৪

এসি জুবের আহমদের দাফন সম্পন্ন

পুলিশ কর্মকর্তা জুবের ছিলেন একজন মেধাবী ও চৌকষ অফিসার: এসএমপি কমিশনার

প্রকাশিত: ১৩ আগস্ট ২০১৯ ১০ ১০ ১৪  

স্টাফ রিপোর্টার:: শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা শাখার সহকারী কমিশনার জুবের আহমদ পিপিএম। সোমবার বাদ আসর সিলেট জেলা পুলিশ লাইন্সে প্রথম জানাজা ও বাদ মাগরিব নয়াসড়ক জামে মসজিদে দ্বিতীয় দফা ওই পুলিশ কর্মকর্তার নামাজের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর তাকে দাফন করা হয়। 

নগরীর চারাদিঘীর পাড় এলাকায় বাসার ছাদ থেকে নিহত হওয়া সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা শাখার সহকারী কমিশনার জুবের আহমদকে দু’দফা জানাজা শেষে নগরীর মানিক পীর গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

সোমবার বাদ আসর সিলেট পুলিশ লাইন্সে প্রথম জানাজা ও বাদ মাগরিব নয়াসড়ক জামে মসজিদে দ্বিতীয় দফা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর হযরত মানিক পীর (রহ.) এর গোরস্তানে তাকে দাফন করা হয়।

পুলিশ লাইন্সে জানাজার পূর্বে সহকারী পুলিশ কমিশনার জুবের আহমদের মরদেহে শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয় এবং তাকে সালাম জানিয়ে গার্ড অব অনার প্রদান করে পুলিশের একটি চৌকস দল। 

পুলিশ লাইন্সে প্রথম জানাজায় উপস্থিত ছিলেন, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার গোলাম কিবরিয়া, উপ কমিশনার কামরুল আমীন, ফয়সল মাহমুদ, আজবাহার আলী শেখ, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান, কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, বার কাউন্সিলের সদস্য এডভোকেট রুহুল আনাম মিন্টু, গোয়াইনঘাট থানার ওসি মোঃ আহাদ, সিলেট মেট্রোপলিটন ইউনোভার্সিটির সহকারী প্রক্টর এডভোকেট আব্বাস উদ্দিন, সাংবাদিক এ টি এম তুরাবসহ পুলিশের বিভিন্ন ধাপের সদস্যবৃন্দ, সংবাদকর্মী, রাজনীতিবিদ, আত্মীয়-স্বজন ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা।

জানাজা শেষে জুবের আহমদের জন্য দোয়া চেয়ে বক্তব্য রাখেন মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার গোলাম কিবরিয়া। তিনি বলেন, সহকারী কমিশনার জুবের আহমদ অত্যন্ত মেধাবী ও চৌকষ অফিসার ছিলেন। তার কর্মদক্ষতার কারনে তাকে পিপিএম সেবায় ভূষিত করা হয়ে ছিলো। জুবের আহমদের অকালে চলে যাওয়ায় পুলিশের একজন গর্বিত সদস্যকে আমরা হারালাম। যাহা মেনে নিতে খুব কষ্ট হচ্ছে। তিনি জুবের আহমদ ও তার পরিবারের জন্য সকলের দোয়া চান।

উল্লেখ্য, জানা গেছে, রবিবার বিকাল ৫টার দিকে চারাদিঘীর পাড় এলাকার আলআমিন ৫ নম্বর বাসার চারতলার ছাদে ঘুড়ি উড়াতে উঠেন জুবের আহমদ। হঠাৎ তিনি অসাবধানতা বশত চারতলা থেকে নিচে পড়ে গুরুতর আহত হন। এসময় তাকে আহত অবস্থায় মিরবক্সটুলা মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুকালে জুবের আহমদ তিন ছেলে, স্ত্রীসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

Dream Sylhet
ড্রীম সিলেট
ড্রীম সিলেট
এই বিভাগের আরো খবর